শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ



তালেবান হামলায় আফগানিস্তানে সেনাসহ নিহত ২ শতাধিক
খবর: নিউইয়র্ক টাইমস

খবর: নিউইয়র্ক টাইমস



বিজ্ঞাপন

আফগানিস্তানে বিগত তিন দিনে চারদিক থেকে তালেবান হামলায় সরকারি বাহিনীর ২ শতাধিক সদস্য নিহত হয়েছে বলে খবর দিয়েছে মার্কিন পত্রিকা নিউইয়র্ক টাইমস।

সবচেয়ে প্রবল আঘাতের সম্মুখীন হয়েছে গজনি শহর। রোববার পর্যন্ত সেখানে তালেবান হামলায় শতাধিক পুলিশ ও সৈন্য নিহত হয়েছে।

সেখানে বিদ্রোহীরা কৌশলগত কারণে গুরুত্বপূর্ণ শহরটির বেশিরভাগ এলাকা ও সরকারি স্থাপনা তাদের নিয়ন্ত্রণে প্রতিষ্ঠা করেছে।

তালেবানরা পশ্চিমে গজনি প্রদেশের আজরিস্তান জেলা দখল করে নিয়েছে বলে জানায় টাইমস। সেখানকার মোতায়েন অভিজাত আর্মি কমান্ডো দল দু’দিন ধরে নিখোঁজ ছিলেন এবং তাদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা তাদের ভাগ্যে কী ঘটেছে তা নিশ্চিত ছিলেন না।

রোববার তাদের খোঁজ পাওয়ার পর ধারণা করা হয়, ৪০ থেকে ১০০ জন নিহত হয়েছে। পাহাড়ে হারিয়ে যাওয়া সৈন্যদের খুঁজে পান উদ্ধারকর্মীরা। পরে জীবিত ২২ জনকে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়।

উত্তর পশ্চিমের ফারিয়াব প্রদেশে আফগান ন্যাশনাল আর্মির একটি ঘাঁটিতে তালেবান হামলায় রোববার পর্যন্ত প্রায় ৫০ জন সৈন্য নিহত হয়েছে। বেঁচে যাওয়া সৈন্যরা জানান, তারা আর একদিনও সেখানে টিকে থাকতে পারতেন না।

ফারিয়াব ঘাঁটির পশ্চিমে বাঘলান প্রদেশের জংল বাগে আরেকটি ঘাঁটিতে বিদ্রোহীরা শনিবার ৯ জন সৈন্য ও ৭ পুলিশ সদস্যকে হত্যা করে এবং আরো তিন সৈন্যকে ধরে নিয়ে যায়।

গজনি হাসপাতালের পরিচালক বাজ মোহাম্মদ হেমাত জানান, হাসপাতালে ১১৩টি মৃতদেহ এবং ১৪২ জনকে আহত অবস্থায় নিয়ে আসা হয়েছে। তাদের প্রায় সবাই উর্দি পরা।

তিনি বলেন, ‘হাসপাতালের কক্ষ শেষ হয়ে যাচ্ছে; আমরা এখন করিডরসহ সব খালি জায়গা ব্যবহার করছি। হাসপাতালের খুব কাছেই লড়াই চলছে। এখানে অবস্থা খুবই খারাপ। প্রতি ঘণ্টায় আরও মৃতদেহ ও আহত মানুষ আসছে।’

শহরের বিভিন্ন জায়গায় আরও মৃতদেহ পড়ে থাকার খবর পাওয়া যাচ্ছে, ফলে নিহতের প্রকৃত সংখ্যা আরো বেশি হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

গজনির পতন হলে তা হবে তালেবানদের জন্য এখন পর্যন্ত সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিজয়। শহরটি উত্তর-দক্ষিণে বিস্তৃত মহাসড়কের ওপর অবস্থিত হওয়ায় এটা দখল করে নিলে উত্তরে রাজধানী কাবুলের সঙ্গে দক্ষিণের পশতুন এলাকার সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে।

গজনির পুলিশ চিফ কর্নেল ফারিদ আহমেদ মাশাল জানান, মার্কিন সৈন্যসহ নতুন সাহায্যকারী সৈন্যদল শহর থেকে তালেবানদের হটিয়ে দিচ্ছে।

তিনি জানান, এক হাজারেরও বেশি তালেবান যোদ্ধা গজনি আক্রমণ করে এবং তাদের ৫০০ জনকে হত্যা করা হয়েছে।