রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ



                    চাইলে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন

বড়লেখায় ছুটি ছাড়াই ইউপি চেয়ারম্যান বিদেশে!



বিজ্ঞাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক:: মৌলভীবাজারের বড়লেখার দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নাহিদ আহমদ বহিঃ বাংলাদেশ গমণের ছুটির একটি আবেদন করেই তা মঞ্জুর হওয়ার আগেই বিধি বহির্ভূতভাবে আমেরিকা গমণ করেছেন। এতে ভুক্তভোগিরা তাকে না ভোগান্তিতে পড়েছেন। এমনকি তার ফোনও বন্ধ রয়েছে। ইউপি সচিব মিহির কান্তি দাস চেয়ারম্যান নাহিদের আমেরিকা গমণের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তবে ইউএনও নাজরাতুন নাঈম বলছেন, ছুটির অনুমোদন ছাড়া বিদেশ গমণ বিধিবহির্ভূত।

এদিকে প্রায় এক মাস ধরে বন্যাসহ নানা দুর্যোগে চেয়ারম্যান এলাকায় না থাকায় ইউনিয়নবাসী পড়েছেন নানা ভোগান্তিতে। অভিযোগ উঠেছে ইউপি চেয়ারম্যান নাহিদ আহমদ যেভাবে বিধি বহির্ভূতভাবে আমেরিকা গেছেন ঠিক তেমনি প্যানেল চেয়ারম্যান-১ (ইউপি সদস্য) আব্দুল মান্নানের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালনও বিধিবহির্ভূত ও অবৈধ।

জানা গেছে, বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউপি চেয়ারম্যান নাহিদ আহমদ বহিঃ বাংলাদেশ (আমেরিকা) গমণের জন্য ইউএনও’র মাধ্যমে সিলেট বিভাগীয় কমিশনার বরাবর ৯০ দিনের ছুটির জন্য একটি আবেদন করেন। আবেদনে ছুটির যৌক্তিক কারণ না থাকায় ৯ জুন বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় থেকে ছুটির যুক্তিসঙ্গত কারণ জানাতে জেলা প্রশাসকের কাছে পত্র প্রেরণ করা হয়। পরে তদন্ত প্রতিবেদন চেয়ে জেলা প্রশাসক তা বড়লেখা ইউএনও বরাবর পাঠিয়ে দেন। কিন্তু এই তদন্তের দুই মাস আগেই ইউপি চেয়ারম্যান নাহিদ আহমদ আমেরিকা গমণ করেছেন।

ইউপি সচিব মিহির কান্তি দাস জানান, ১৩ জুন ইউপি চেয়ারম্যান নাহিদ আহমদ আমেরিকায় গেছেন। সেখানে তিনি ৩ মাস থাকবেন। যাওয়ার আগে প্যানেল চেয়ারম্যান-১ ইউপি সদস্য আব্দুল মান্নানকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দিয়ে গেছেন। তিনি ৯০ দিনের ছুটি নিয়েছেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ১৩ জুন নয়, ইউপি চেয়ারম্যান অন্তত দুই মাস আগে আমেরিকা গেছেন। ইউপি সচিব, ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান-১ প্রথম দিকে ইউনিয়নে সেবাগ্রহীতাদের চেয়ারম্যান ঢাকায় চিকিৎসা নিতে গেছেন বলে বিভ্রান্ত করেছেন। ঈদের পর থেকে বলছেন তিনি ছুটি নিয়ে আমেরিকা গেছেন।

বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাজরতুন নাঈম জানান, দক্ষিণ শাহবাজপুর ইউপি চেয়ারম্যান নাহিদ আহমদের আমেরিকা গমণের বিষয়টি তার জানা নেই। তবে ইতিপূর্বে তিনি বহিঃ বাংলাদেশ গমণের জন্য ৯০ দিনের ছুটির জন একটি আবেদন করেছেন। আবেদনটি অনুমোদন হয়নি, এখনও প্রক্রিয়াধীন। ছুটির অনুমোদন ছাড়া বিদেশ গমণ বিধিবহির্ভূত। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, যথাযথ নিয়মে দায়িত্ব হস্তান্তর না হলে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালনও বিধি বহির্ভূত। বিষয়টি তিনি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেবেন।