মঙ্গলবার, ৫ মার্চ ২০২৪ খ্রীষ্টাব্দ | ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ



                    চাইলে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন

শাহবাজপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে সওজের ভূমিতে ঘর নির্মাণের অভিযোগ



বিজ্ঞাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক:: মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার শাহবাজপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে সড়ক ও জনপথ বিভাগের ভূমিতে বাণিজ্যিক দোকানঘর নির্মাণের অভিযোগ ওঠেছে। সরকারি ভূমিতে পাকা স্থাপনা নির্মাণে সড়ক সরু হয়ে দুর্ঘটনার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা। এতে সচেতন মহলে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। এব্যাপারে খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে সওজের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী শাহ আলম।

স্থানীয় সূত্র জানা গেছে, সড়ক ও জনপথ বিভাগের বড়লেখা-শাহবাজপুর ভায়া দৌলতপুর সড়কের শাহবাজপুর বাজারের প্রবেশ মুখে সড়কের সাথে শাহবাজপুর স্কুল এন্ড কলেজের সীমানা রয়েছে। স্থানীয় ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী অভিযোগ করেন স্কুল এন্ড কলেজ কর্তৃপক্ষ সড়ক ও জনপথ বিভাগের ভূমির সাথে প্রতিষ্ঠানের ভূমির সীমানা নির্ধারণ না করেই সিংহভাগ সরকারি ভূমি দখল করে বাণিজ্যিক মার্কেট তৈরী করে বেশ কয়েকটি দোকানঘর ভাড়া দিয়েছে। এর একাংশে কিছু জায়গা ফাঁকা ছিল। সেখানেও চার দিন আগে দোকানঘর নির্মাণের কাজ শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ। ভাড়া দেওয়ার জন্য এখানে তিনটি রুম তৈরী করাচ্ছেন স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল বাছিত। এতে সচেতন মহলে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

সরেজমিনে গিয়ে সরকারি পাকা সড়ক সংলগ্ন স্থানে দোকান ঘর নির্মাণের কাজ চলতে দেখা গেছে।

অধ্যক্ষ আব্দুল বাছিত জানান, স্কুল এন্ড কলেজের নিজস্ব ভূমিতেই কমিটির অনুমোদন নিয়ে দোকানঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। যেহেতু সড়ক ও জনপথ বিভাগের ভূমির সাথে নির্মিতব্য স্থাপনার ভূমির অবস্থান, সেহেতু, সওজ-কে নিয়ে সীমানা নির্ধারণ করে স্থাপনা তৈরী করছেন কি-না জানতে চাইলে তিনি না বলেন।

শাহবাজপুর বাজার বণিক সমিতির সাবেক সভাপতি আব্দুর রহমান বাবুল জানান, তার জানামতে যেখানে দোকানঘর বানানো হচ্ছে এর বেশিরভাগ ভূমি সড়ক ও জনপথ বিভাগের। সড়কের ভূমিতে স্কুল এন্ড কলেজ কর্তৃপক্ষ কিভাবে স্থাপনা নির্মাণ করলেন বা এখন করছেন তিনি তা জানেন না।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান রফিক উদ্দিন আহমদ জানান, স্কুল এন্ড কলেজ কর্তৃপক্ষের ইতিপূর্বের তৈরী বাণিজ্যিক দোকানঘরগুলোর সিংহভাগ ভূমিই সরকারি। এবার নির্মাণ কাজ শুরু করতেই তিনি বাঁধা দিয়েছিলেন। কিন্তু তারা তা মানেনি।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী শাহ আলম জানান, সীমানা নির্ধারণ ব্যতীত সওজ ভূমি সংলগ্ন স্থানে কারো স্থাপনা নির্মাণ করা সঠিক নয়। তিনি খোঁজ নিয়ে এব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন।