শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ



‘অলৌকিক’ চেচুয়া বিলে ভিড় আছেই, নেই রোগমুক্তি
নিউজ ডেস্ক

নিউজ ডেস্ক



বিজ্ঞাপন

‘অলৌকিক’ চেচুয়া বিলে ভিড় আছেই, নেই রোগমুক্তি

শারীরিক সক্ষমতাসহ নানা রোগ মুক্তির আশায় গত তিনদিন ধরে লাখো মানুষের ঢল নেমেছে ময়মনসিংহের ত্রিশালের চেচুয়া বিলে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে ছড়ানো গুজবে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানুষ ভিড় করছেন। অলৌকিক ভেবে বিলের কচুঁরিপানার কাদাযুক্ত পানিতে ডুব দিচ্ছেন, শরীরে মাখছেন। কেউ কেউ সঙ্গে নিয়ে যাচ্ছেন পান করার জন্য।

আর এসব করে ইতোমধ্যে অর্ধশতাধিক মানুষ অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। বিপরীতে বিলের পানি বা কাঁদা খেয়ে কেউ সুস্থ হয়েছেন, এমন নজির কেউ উপস্থাপন করতে পারেননি। এরপরও হাজারো উৎসুক জনতার ভিড় লেগেই আছে চেচুয়া বিলে।

মানুষের ভিড় সামলাতে সোমবার সকাল থেকে বিল এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে কাউকে বিলে নামতে দেয়া হচ্ছে না। এরপরও মানুষ নানাভাবে বিলে নামছেন। ভিড় সামলাতে গতকাল রোববার পুলিশ কয়েক দফা লাঠিচার্জও করে।

বিলের পানি নিতে ঢাকা থেকে আসা মরিয়ম ও সুলতানা জানান, নিজের ও সন্তানদের রোগমুক্তির জন্য এসেছেন। কিন্তু, পুলিশ তাদের বিলে যেতে বাধা দিচ্ছেন।

তবে থেমে থাকেনটি এই দুই নারী। কিছু রাস্তা ঘুরে দূরে দিয়ে বিলে নেমে গোসল করেছেন।

এমনিভাবে মোশাররফ ও কবির মিয়া জানান, তাদের প্রতিবন্ধী দুই সন্তানকে নিয়ে এসেছেন। সন্তানদের বিলের পানিতে গোসল করিয়েছেন। বাদবাকি আল্লাহর ওপর ভরসা করছেন।

সুনামগঞ্জ থেকে আসা শরিফা খাতুন জানান, রোববার অনেক ভিড় সামলে বাকপ্রতিবন্ধী সন্তানকে নিয়ে বিলে ডুব দিয়েছেন। সুস্থতার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এখনো তেমন পরিবর্তন আসেনি, আল্লাহই ভালো জানেন।’

স্থানীয় বাসিন্দা মকবুল হোসেন ও রোকেয়া আক্তার জানান, আসলে বিষয়টি সম্পূর্ণ গুজব। অন্ধ বিশ্বাসে মানুষ এমনটি করছেন।

বিলের পাশে থেকে দীর্ঘদিন পানি ব্যবহার করেও তারা কোনো উপকার পাননি। হঠাৎ লাখো মানুষের ঢল দেখে অবাক বনে গেছেন বলেও জানান মকবুল ও রোকেয়া।

এ বিষয়ে পুলিশ সুপার (এসপি) শাহ আবিদ হোসেন জানান, ত্রিশালের চেচুয়া বিলের পানিতে ডুব দিলে অথবা পানি পান করলে রোগ সারছে, এটি গুজব। এসব কারা ছড়িয়েছে, তাদের খুঁজে বের করা হচ্ছে।