মঙ্গলবার, ৫ মার্চ ২০২৪ খ্রীষ্টাব্দ | ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ



                    চাইলে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন

মাধবপুরে মুক্তিপণের টাকা না পেয়ে শিশুকে হত্যা: দুইজনের যাবজ্জীবন



বিজ্ঞাপন

নিউজ ডেস্ক: হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলায় মুক্তিপণের টাকা না পেয়ে শিশুকে অপহরণের পর হত্যার দায়ে দুই আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একইসঙ্গে তাদেরকে ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

বুধবার বিকেল সাড়ে ৩ টার দিকে হবিগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-(৩) এর বিচারক মোহাম্মদ হালিম উল্ল্যাহ চৌধুরী এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন উপজেলার শিবজয়নগর গ্রামের বাসিন্দা জালাল মিয়া ও একই গ্রামের রাসেল মিয়া।


হবিগঞ্জের কোর্ট ইন্সপেক্টর আল-আমিন হোসেন জানান, শিবজয়নগর গ্রামের জালাল মিয়াসহ তাদের লোকজনের বাড়ির জায়গা সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ ছিল পার্শ্ববর্তী সাবাশ আলীর সঙ্গে। এরই জের ধরে জালাল মিয়াসহ তাদের লোকজন ২০১৮ সালের ৬ জানুয়ারি সাবাশ আলীর ৭ বছরের শিশু সন্তান শাহ পরানকে অপহরণ করে দুই লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। পরে মুক্তিপণের টাকা না পেয়ে তাকে হত্যা করে মরদেহ ফেলে রাখে গ্রামের একটি ডোবায়।

পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। পরে এ ঘটনায় ১১ জানুয়ারি নিহত শাহ পরানের বাবা সাবাশ আলী বাদী হয়ে জালাল মিয়া, রাসেল মিয়া ও বাহার মিয়াকে আসামি করে মাধবপুর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলাটি দায়েরের পর পুলিশ দীর্ঘ তদন্ত শেষে জালাল মিয়া ও রাসেল মিয়াকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। এছাড়াও কোনো অভিযোগ না থাকায় বাহার মিয়াকে চার্জশিট থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়। আদালত এ মামলায় ২৪ জন স্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আজ এ রায় প্রদান করেন।


আসামি পক্ষের আইনজীবী মো. জসীম উদ্দিন বলেন, আসামিদের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগই প্রমাণ করতে পারেনি রাষ্ট্রপক্ষ। তবুও দুইজন আসামিকে যাবজ্জীবন দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে আমরা উচ্চ আদালতে আপিল করব।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন স্পেশাল পিপি মোস্তফা মিয়া।