মঙ্গলবার, ৫ মার্চ ২০২৪ খ্রীষ্টাব্দ | ২২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ



                    চাইলে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন

‘বাবাকে ক্ষমা করে দেবেন’
নিউজ ডেস্ক

নিউজ ডেস্ক



বিজ্ঞাপন

‘আমার বাবার জন্য সবাই দোয়া করবেন, বাবার জন্য চট্টগ্রামবাসীর কাছে দোয়া চাই। জীবদ্দশায় আমার বাবা যদি কোনো ভুল করে থাকেন, অনুগ্রহ করে বাবাকে ক্ষমা করে দেবেন।’

ভারাক্রান্ত কণ্ঠে কথাগুলো বললেন রূপালী গিটারের জাদুকর কিংবদন্তি আইয়ুব বাচ্চুর প্রবাস ফেরা ছেলে আহনাফ তাজওয়ার।

বাবার মৃত্যু খবর পেয়ে আগের রাতে কানাডা থেকে দেশে ফিরেন তিনি।

উপস্থিত সাংবাদিবদের আহনাফ তাজওয়ার বলেন, গেল বার কানাডা যাওয়ার আগে বাবার সাথে স্টেজে গিটার বাজিয়েছি। ভাবিনি সেটা আজ স্মৃতি হয়ে যাবে।

শুক্রবার দিনগত রাত ১২টা ৫৫ মিনিটে কানাডা থেকে ছেলে আহনাফ তাজওয়ার এবং অস্ট্রেলিয়া থেকে কন্যা ফাইরুজ সাফরা রাত দেড়টায় দেশের মাটিতে পা রাখেন।

এরপর বিমানবন্দর থেকে তারা রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে যান বাবার মৃতদেহ রাখা সেই হীমশীতল ঘরে। ওই সময় সেখানে ছিলেন বাচ্চুর স্ত্রী ফেরদৌস আকতার।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে মৃত্যুবরণ করেন এই বরেণ্য কিংবদন্তি শিল্পী আইয়ুব বাচ্চু।

শনিবার সকাল ১০টা ৫৭ মিনিটে চট্টগ্রাম শাহ আমানত বিমানবন্দরে লাশটি পৌঁছার পর সেখান থেকে সরাসরি নেয়া হয় তার শৈশব কাটা নানার বাড়ি চট্টগ্রামের দক্ষিণ পূর্ব মাদারবাড়িতে।

এদিকে, প্রিয় এ শিল্পীকে একনজর দেখতে দূর-দূরান্ত থেকে দক্ষিণ পূর্ব মাদারবাড়িতে হাজির হয়েছেন হাজার হাজার ভক্ত।

৩টার দিকে নগরের দামপাড়া জমিয়াতুল ফালাহ মসজিদ প্রাঙ্গণে নেয়া হবে বাচ্চুর মরদেহ। সেখানে আসর নামাজের পর জানাজা হবে। এরপর সেখান থেকে দাফনের জন্যে নেয়া হবে ১৫ বছর আগে মাকে দাফন করা সেই চৈতন্যগলির বাইশ মহল্লার কবরস্থানে।

প্রসঙ্গত, গতকাল বৃহস্পতিবার মাত্র ৫৬ বছর বয়সে আইয়ুব বাচ্চু মারা যান। তার আকস্মিক মৃত্যুতে সাংস্কৃতিক জগতসহ সারাদেশে শোকের ছায়া নেমে আসে।

তিনি ছিলেন একাধারে গায়ক, গিটারিস্ট, গীতিকার, সুরকার, প্লেব্যাক শিল্পী। এলআরবি ব্যান্ড দলের লিড গিটারিস্ট তিনি। তিনি ১৯৬২ সালের ১৬ আগস্ট চট্টগ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।