শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ



গোলাপগঞ্জে দলীয় প্রার্থীর মনোনয়ন নিয়ে বিপাকে বিএনপি



বিজ্ঞাপন

জাহিদ উদ্দিন, গোলাপগঞ্জ:
গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদে উপ-নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী মনোনীত করতে বিপাকে পড়েছেন স্থানীয় বিএনপিসহ জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ। নির্বাচনে আওয়ামীলীগ তাদের দলীয় প্রার্থী ঘোষণা করলেও বিএনপি এখনো তাদের প্রার্থী নির্ধারণ করতে পারেনি।

গত ৫ সেপ্টেম্বর বুধবার মধ্যরাত পর্যন্ত উপজেলা ও পৌর বিএনপির কার্যালয়ে বৈঠকে আলাপ আলোচনা করে উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিসকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দিলেও তা ফিরিয়ে দিয়েছেন নার্জিস। এদিকে দলীয় মনোনয়ন ফিরিয়ে দিলেও তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন বলে জানিয়েছেন।

এছাড়াও গত নির্বাচনে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী শাহিনও দলীয় প্রতীকে নির্বাচন না করে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এখন পর্যন্ত দলীয় প্রার্থী নির্ধারণ না করা এবং বিএনপির দুই বিদ্রোহী প্রার্থী স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচনের ঘোষণা নেতাকর্মীদের ভাবিয়ে তুলেছে।

এদিকে দলীয় মনোনয়ন ফিরিয়ে দেয়ার ব্যাপারে মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস বলেন, বিএনপি থেকে আমাকে মনোনয়ন প্রদান করা হলেও আমার এলাকার ভোটাররা চাচ্ছে আমি যেন কোনো দলের প্রার্থী না হই। এজন্য আমি এলাকাবাসীর স্বার্থে মনোনয়ন ফিরিয়ে দিয়েছি এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

গত পৌর নির্বাচনের বিএনপির মনোনীত প্রার্থী পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী শাহিনের কাছে দলীয় প্রতীকে কেন নির্বাচন করবেন না জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি জেলা ও স্থানীয় বিএনপির সাথে আলাপ করে জানতে পারি এবার মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিসকে বিএনপির প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়া হবে আমি চাইলেও পাব না। তাই বিএনপির প্রার্থী হওয়ার ইচ্ছে থাকলেও আমি হতে পারেনি।

বিএনপির প্রার্থীরা দলীয় মনোনয়ন পেতে কেন আগ্রহী নয় জানতে চাইলে পৌর বিএনপির সভাপতি মশিকুর রহমান মহি জানান, কেন বিএনপির প্রার্থীরা মনোনয়ন নিতে আগ্রহী নয় বিষয়টি আমার জানা নয়। আজ বিকেলে আমরা জরুরি বৈঠকে বসবো। বৈঠকে বিএনপির নতুন প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়া হবে।

এদিকে আওয়ামীলীগ তাদের প্রার্থী হিসেবে সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলুর নাম ঘোষণা করেছে। বৃহস্পতিবার (৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের এক সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানা যায়।

প্রসঙ্গত, গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আওয়ামীলীগ নেতা সিরাজুল জব্বার চৌধুরী গত ৩১ মে মৃত্যু বরণ করলে শূন্য হওয়া মেয়র পদের উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। গত সোমবার (৩ সেপ্টেম্বর) সিলেট জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও গোলাপগঞ্জ পৌরসভার উপনির্বাচনে দায়িত্বে থাকা রিটার্নিং কর্মকর্তা খুরশেদ আলম এ তফসিল ঘোষণা করেন।

তফসিল অনুযায়ী আগামী ৩ অক্টোবর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র জমাদানের শেষ দিন ৯ সেপ্টেম্বর; ১০ সেপ্টেম্বর বাছাই; ১৭ সেপ্টেম্বর মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন।