রবিবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ



নবীগঞ্জে টাকা নিয়ে ‘পীর’ উধাও!
নিউজ ডেস্ক

নিউজ ডেস্ক



বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ ইসলামী ব্যাংক নবীগঞ্জ শাখা থেকে টাকা উত্তোলন করে বাড়ি ফেরার পথে ছদ্মবেশী একটি প্রতারক চক্র প্রবাসীর স্ত্রীর ৩০ হাজার টাকা কৌশলে হাতিয়ে নেওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

গতকাল বুধবার সকালে নবীগঞ্জ শহরের শেরপুর রোডে অবস্থিত ইসলামী ব্যাংক কার্য্যালয়ের সামনে এ ঘটনাটি ঘটে। এ নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। ব্যাংক কর্তৃপক্ষের ভাষ্য ও গ্রাহকের বক্তব্য নিয়ে ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে।

সূত্র জানায়, উপজেলার দীঘলবাক ইউনিয়নের জিয়াপুর গ্রামের জনৈকা এক মহিলা ইসলামী ব্যাংক নবীগঞ্জ শাখায় সৌদি আবর থেকে তার স্বামী কর্তৃক প্রেরণকৃত টাকা উত্তোলন করতে গতকাল সকাল ১২টায় ব্যাংকে আসেন। চেকের মাধ্যমে ৩০ হাজার টাকা উত্তোলন করে ফেরার পথে ব্যাংকের সামনে আসা মাত্রই পূর্ব থেকে উৎ পেতে থাকা প্রতারক চক্র ওই মহিলাকে ভাল মন্দ জিজ্ঞাসা করে পরিচয় দেয় সে একজন বড় ‘পীর’। সে ফুঁ দিলে নাকি যত টাকাই থাকুক তা বেরে যাবে। এমন লোভে পড়ে ওই মহিলা প্রতারকদের ফাঁদে পা দেন। তখন মহিলা বলেন, ‘আমার ব্যাগে ৩০ হাজার টাকা আছে’।

এ সময় প্রতারক চক্র বলে ‘পীর সাহেব ফুঁ দিলেই ব্যাগের ভিতরে থাকা ৩০ হাজার টাকা ৩০ লাখ হয়ে যাবে।’ তাদের কথা মতো মহিলার চোঁখ বন্ধ করেন আর ফুঁ দেয় কথিত ‘পীর’। এর পরেই ৩০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়ে দ্রুত চম্পট দেয় প্রতারক চক্র। এক পর্যায়ে মহিলার চিৎকারে আশপাশের লোকজন জড়ো হয়। এ নিয়ে শহরজুড়ে হৈ চৈ শুরু হয়। ব্যাংকের সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, কালো বোরকা পরিহিত ওই মহিলা ব্যাংক থেকে নেমে যাওয়ার সময় তার পিছু নেয় সাদা শার্ট ও লুঙ্গি পরিহিত মধ্যবয়সী এক পুরুষ। এসময় মহিলার সাথে ১৭ বছর বয়সী তার ছেলে ছিল।

এ ব্যাপারে ইসলামী ব্যাংক নবীগঞ্জ শাখার এক কর্মকর্তা জানান, ওই মহিলা ব্যাংকে গিয়ে জানান, সে টাকা উত্তোলন করে ব্যাংকের সামনে যাওয়া মাত্রই কৌশলে প্রতারক চক্র তার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

এদিকে ওই গ্রাহকের ব্যবহৃত ফোনে কল দিয়ে ঘটনা সর্ম্পকে জানতে চাইলে নয়ন নামের এক যুবক ফোন রিসিভ করে নাম ঠিকানা ও তথ্য দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন। তিনি জানান, ‘যা হওয়ার তো হয়েই গেছে এখন এসব পত্রিকায় প্রকাশ করে কি হবে।’