মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ খ্রীষ্টাব্দ | ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ



                    চাইলে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন

বড়লেখা আদালত প্রাঙ্গণ থেকে গ্রেফতার সেই আসামীর কারাগারে মৃত্যু



বিজ্ঞাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক:: মৌলভীবাজারের বড়লেখা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত প্রাঙ্গণে মারামারির ঘটনায় আটক এবং ৫৪ ধারায় চালান হওয়া সেই আসামী আলাউদ্দিন (৬০) মৌলভীবাজার জেলখানায় মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে এগারোটার দিকে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে জেল কর্তৃপক্ষ তাকে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত আলাউদ্দিন বড়লেখা উপজেলার নিজ বাহাদুরপুর ইউনিয়নের চান্দগ্রাম দক্ষিণ জিনাত গ্রামের আজমল আলীর ছেলে। তিনি বড়লেখা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বিচারাধীন একটি জি.আর মামলার প্রধান আসামী।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার বিচারাধীন একটি মামলার হাজিরা দিতে আপন ভাই ফারুক আহমদসহ অন্যান্য আসামীদের সাথে বড়লেখা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে যান আলাউদ্দিন। আদালত প্রাঙ্গণে মামলার ডাকপড়ার অপেক্ষা কালিন ওই মামলার বাদী সাইদুল ইসলাম আসামী ফারুক আহমদের মাথা ফাটিয়ে রক্তাক্ত জখম করেন। আহত ফারুক আহমদের ভাই আলাউদ্দিন হামলাকারী সাইদুল ইসলামের কবল থেকে ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে সাইদুল ইসলামকে চড়থাপ্পড় মারেন। এ ঘটনায় আদালত পুলিশ হামলাকারী বাদী ও আহত আসামীর ভাই আলাউদ্দিনকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করেন। পরে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ জিয়াউল হক হামলাকারী সাইদুল ইসলাম ও আলাউদ্দিনকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে জেল হাজতে প্রেরণের আদেশ দেন।

মৌলভীবাজার জেলা কারাগারের জেল সুপার মো. আব্দুল কুদ্দুস হাজতি আলাউদ্দিনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যার দিকে পুলিশ আলাউদ্দিন ও সাইদুল ইসলামকে কারাগারে নিয়ে আসে। এর একদিন পর বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে এগারোটার দিকে হঠাৎ তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। হাত-পা কাপছিল, শারীরিক অবস্থা দেখে ধারণা করা হয় তিনি ডায়বেটিস, হার্টসহ বিভিন্ন অসুখে ভুগছিলেন। দ্রুত তাকে মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠানো হয়। কিন্তু দুপুর সোয়া বারোটার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।