মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ



                    চাইলে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন

বড়লেখার দুবাইপ্রবাসীর যে ভিডিও নিয়ে তোলপাড়



বিজ্ঞাপন

এ.জে লাভলু:: মৌলভীবাজারের বড়লেখার দুবাইপ্রবাসী সুলতান আহমদ হিরনের (৪০) একটি ভিডিও নিয়ে তোলপাড় চলছে। সম্প্রতি ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ওই ভিডিওতে দেখা গেছে, সুলতান থানার ভেতরে পুলিশের সামনে এক যুবককে মারধর করছেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঘটনাটি গত বছরের আগস্ট মাসে মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া থানায় ঘটেছে।

সুলতান বড়লেখা উপজেলার কাশেমনগর গ্রামের মৃত আমিন আলীর ছেলে। সুলতান স্বর্ণপাচার মামলায় গত বছরের ডিসেম্বর মাসে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন। স¤প্রতি তিনি জামিনে বেরিয়েছেন। তবে স্বজনদের দাবি, সুলতান স্বর্ণপাচারকারী নয়। তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে জেলে গেছেন।

ভিডিওতে দেখা যায়, সুলতান পুলিশের চেয়ারে বসে আছেন। সামনে দাঁড়িয়ে আছেন এক যুবক। কোমরে পিস্তল গোঁজা অবস্থায় পাশে দাঁড়িয়ে আছেন একজন পুলিশ সদস্য। কথার এক পর্যায়ে সাদা পোশাকধারী পুলিশ সদস্য ওই যুবককে চড় থাপ্পড় মারেন। একপর্যায়ে চেয়ার থেকে উঠে সুলতান ওই যুবককে মারধর করে ফ্লোরে ফেলে মাথায় পা দিয়ে চেপে ধরেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, যে যুবককে সাটুয়ারিয়া থানায় মারধর করা হয়েছে তার নাম নাজমুল ইসলাম। তার বাড়ি সাটুয়ারিয়া থানায়। নাজমুল গত বছরের আগস্টে দুবাই থেকে দেশে আসেন। ওই সময় সুলতান কয়েক ভরি স্বর্ণ নাজমুলের কাছে দেন। বিনিময়ে নাজমুলকে বিমানের টিকিট দিয়েছিলেন সুলতান। কথা ছিলো নাজমুল স্বর্ণগুলো সুলতানের স্বজনদের কাছে দেবেন। কিন্তু নামজুল দেশে এসে স্বর্ণগুলো সুলতানের আত্মীয়ের কাছে না দিয়ে নিজের কাছে রেখে দেন। স্বর্ণ উদ্ধারের জন্য সুলতান কয়েকদিন পর দুবাই থেকে দেশে ফিরে মৌলভীবাজার-১ আসনের এমপি ও পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিনের দারস্থ হন। মন্ত্রী স্বর্ণগুলো বৈধ জেনে আইনীভাবে উদ্ধারের জন্য সাটুরিয়া থানার পুলিশকে বলেন। কয়েকদিন পর পুলিশ নাজমুলের অবস্থান শনাক্ত করে তাকে থানায় আনে। ওইদিন সুলতান সাটুরিয়া থানায় গিয়ে নাজমুলকে পুলিশের সামনে মারধর করেন। পরে পুলিশ স্বর্ণ উদ্ধার করতে না পারলেও নাজমুলের কাছ থেকে প্রায় ১৫ লাখ টাকা উদ্ধার করে সুলতানের কাছে দিয়ে বিষয়টি সমাধান করেছে।

সূত্র জানিয়েছে, সুলতান দীর্ঘদিন ধরে স্বর্ণ পাচারের সঙ্গে জড়িত। তিনি প্রায় দুবাই থেকে দেশে আসা ব্যক্তিদের সঙ্গে স্বর্ণ পাঠান। বিনিময়ে তাদের বিমানের টিকিট দেন কিংবা টাকা দেন।

সুলতানের খোঁজে তার বাড়িতে গেলে পাওয়া যায়নি। তার ভাই দুবাই প্রবাসী ফারুক মিয়া বলেন, সুলতান প্রায় ১৫ বছর ধরে দুবাইতে আছে। সেখানে সে সরকারি একটি অফিসের গাড়ি চালনোর পাশাপাশি ফ্ল্যাট লিজ নিয়ে ভাড়া দেয়। থানায় পুলিশের সামনে এক যুবককে মারধরের বিষয়ে তিনি বলেন, ঘটনাটি গত বছরের আগস্টে। ঘটনাটি সমাধান হয়েছে। আমার ভাই সুলতান ষড়যন্ত্রের শিকার। গত বছর স্বর্ণপাচার মামলায় পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে জেলে পাঠায়। তবে সম্প্রতি সে জামিন পেয়েছে।

বড়লেখা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইয়ারদৌস হাসান বলেন, সুলতানের নামে থানায় কোনো মামলা নেই।

পরিবেশমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন বলেন, সুলতান আমার এলাকার ছেলে। সে তাঁর স্বর্ণ হারিয়েছে বলে আমার কাছে এসে বলেছিল। সোনাগুলো বৈধ এবং শুল্ক পরিশোধ করে আনা হয়েছে বলে আমাকে জানিয়েছিল। স্বর্ণগুলো বৈধ দেখে তখন আমি পুলিশকে আইনীভাবে বিষয়টি দেখতে বলেছিলাম। তবে সুলতানের বিরুদ্ধে স্বর্ণ চোরাচালানের অভিযোগ রয়েছে তা তিনি জানেন না।

সাটুরিয়া থানা পুলিশ সূত্র জানিয়েছে, সাটুরিয়া থানায় যুবককে মারধরের ঘটনায় অভিযুক্ত এএসআই তারিক আজিজকে সাময়িক বরখাস্ত করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে। এছাড়া সুলতান ওই থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মহব্বত আলীর চেয়ারে বসায় তাকে কিশোরগঞ্জে বদলি করা হয়।