রবিবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ



নতুন মেয়রের অপেক্ষায় গোলাপগঞ্জ



বিজ্ঞাপন

জাহিদ উদ্দিন, গোলাপগঞ্জ:
গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদে ভোটগ্রহণ বুধবার অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যে গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠানের সব প্রস্তুতি শেষ হয়েছে।

১ অক্টোবর মধ্যরাত থেকে শেষ হয়ে গেছে ৪ প্রার্থীর আনুষ্ঠানিক প্রচার প্রচারণা। এখন ভোটাররা অপেক্ষায় আছেন ভোট দেয়ার। তাই রাত পোহালেই বুধবার সকালে গোলাপগঞ্জ পৌরবাসী তাদের ভোটের মাধ্যমে নির্ধারণ করবেন তাদের নতুন পৌর মেয়রকে।

গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র পদে উপ-নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ ব্যতীত আর কোন রাজনৈতিক দল ভোটের লড়াইয়ে মাঠে থাকছেন না তা আগেই পরিষ্কার হয়ে গেছে। এ নির্বাচনে বিএনপি তাদের প্রার্থী দিলেও মনোনয়ন যাচাই বাছাইয়ে তাদের প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল হয়ে যায়।

এদিকে এ ভোটের লড়াইয়ে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলু ছাড়াও রয়েছেন তিন স্বতন্ত্র প্রার্থী।

তারা হলেন, জগ প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী যুক্তরাজ্য যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক আমিনুল ইসলাম রাবেল। মোবাইল প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী শাহিন। তিনি এ পৌরসভার সর্বশেষ নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপির প্রার্থী ছিলেন। নারিকেল গাছ প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস।

এদিকে সোমবার (১ অক্টোবর) প্রচারণার শেষ দিনে সকল প্রার্থীই গণসংযোগ, পথসভাসহ ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে গিয়ে ভোটারদের মন জয়ে ব্যস্ত ছিলেন।

আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সাবেক মেয়র জাকারিয়া আহমদ পাপলু বিকেল ৫টায় পৌর সদরের চৌমুহনী বাস টার্মিনালে নৌকা প্রতীকের সমর্থনে শেষ নির্বাচনী পথসভা করেন।

এসময় মেয়র প্রার্থী জাকারিয়া আহমদ পাপলু তার বক্তব্যে বলেন, বিগত সময়ে সি গ্রেডের পৌরসভাকে আমি আমার কর্ম দক্ষতার মাধ্যমে এ গ্রেডে উন্নীত করেছি। বিগত দিনে আমার ভুল ত্রুটি হলে নিজের সন্তান ভেবে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। আমার বিগত দিনের উন্নয়নের কথা বিবেচনা করা পৌরবাসী উন্নয়নের প্রতীক নৌকাকে বিজয়ী করবেন।

সন্ধ্যায় আরেক মেয়র পদপ্রার্থী যুক্তরাজ্য যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক আমিনুল ইসলাম রাবেল পক্ষে জগ প্রতীকের সমর্থনে গোলাপগঞ্জ উত্তর বাজারে পথসভার আয়োজন করা হয়।

এতে মেয়র প্রার্থী আমিনুল ইসলাম রাবেল তাঁর বক্তব্যে সদ্য প্রয়াত মেয়র সিরাজুল জব্বার চৌধুরীর রুহের মাগফেরাত কামনা করে বলেন, পৌরবাসীর অনেক প্রত্যাশা এখনো পূরণ হয়নি। পৌরসভার অনেক এলাকা এখনো অনেক সুবিধা থেকে বঞ্চিত। প্রতিটি ওয়ার্ডে সমান উন্নয়নে আমি কাজ করে যাবো। আমি আপনাদের পাশে কর্মী হিসেবে থাকতে চাই। পৌরসভাকে দুর্নীতি মুক্ত করতে ও সাবেক মেয়রের রেখে যাওয়া কাজগুলো সম্পন্ন করতে আগামী নির্বাচনে দিয়ে জগ প্রতীকের পক্ষে রায় দিয়ে সেবা করার সুযোগ দিন।

এর আগে দুপুরে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী শাহিনের পক্ষে মোবাইল প্রতীকের সমর্থনে গোলাপগঞ্জের চৌমুহনীস্থ মার্ভেলাস টাওয়ারের সামনে নির্বাচনী শেষ পথসভা অনুষ্ঠিত হয়।

এ পথসভার প্রধান অতিথির বক্তব্য এ মেয়র প্রার্থী বলেন, আমি আমার অভিজ্ঞতা থেকে পৌরবাসীর সকল সমস্যা চিহ্নিত করে তা সমাধানের চেষ্টা করবো। আমি পৌরবাসীকে খুব বেশি স্বপ্ন দেখাতে চাইনা, স্বপ্ন ভঙ্গও করতে চাইনা।

এ পৌরসভা প্রথম শ্রেণীর হলেও তা শুধু কাগজে কলমে সীমাবদ্ধ। পৌরসভায় যে ধরণের সুযোগ সুবিধা, উন্নয়ন, অগ্রগতি ও অবকাঠামো থাকা দরকার তা পৌরসভায় অনুপস্থিত। দলমত নির্বিশেষে সকলকে সমান অধিকার দিয়ে মিলে মিশে পৌরসভার সার্বিক অগ্রগতি এগিয়ে নিতে আগামীকালের নির্বাচনে পৌরবাসী মোবাইল প্রতিকে তাদের মূল্যবান রায় দিবেন।

পরে বিকেল ৩টায় আরেক স্বতন্ত্র প্রার্থী উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিসের নারিকেল গাছ প্রতীকের সমর্থনে নির্বাচনী শেষ পথসভা মেয়র প্রার্থী মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস বলেন, আমি গোলাপগঞ্জ বাসীর বিভিন্ন দাবি আদায়ে সব সময় তাদের পাশে ছিলাম। গোলাপগঞ্জ পৌরবাসীও আমার পাশে আছে। তাদের ভালবাসা নিয়েই আমি পৌরসভার উপ-নির্বাচনে । সব পেশা শ্রেণীর মানুষের হয়ে কাজ করতে আগামীকালের নির্বাচনে পৌরবাসী তাদের বিচারে আমায় নির্বাচিত করবে।

গোলাপগঞ্জ পৌরসভা সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা সাইদুর রহমান বলেন, নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে ভোট গ্রহণের জন্য সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা করেছে। ইতিমধ্যে নির্বাচনের দায়িত্ব পালনের জন্য ৯জন প্রিজাইডিং অফিসার, ৫৯জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও ১১৮জন পোলিং নিয়োগ ও প্রশিক্ষণ সম্পন্ন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, সর্বশেষ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী ছিলেন জাকারিয়া আহমদ পাপলু। এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক প্রয়াত মেয়র সিরাজুল জব্বার চৌধুরী।

নির্বাচনে সিরাজুল জব্বার চৌধুরী বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন। গত ৩১ মে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র সিরাজুল জব্বার চৌধুরী মৃত্যুবরণ করায় মেয়র পদটি শূন্য হয়। শূন্য পদে উপ-নির্বাচনে এবারো আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে জগ প্রতীক নিয়ে মাঠে রয়েছেন যুক্তরাজ্য যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক আমিনুল ইসলাম রাবেল।

প্রসঙ্গত, গোলাপগঞ্জ পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ২১হাজার ৬শত ৩২জন। তারমধ্যে পুরুষ ভোটার সংখ্যা ১০হাজার ৯শত ৫৮জন ও মহিলা ভোটার সংখ্যা ১০হাজার ৬শত ৭৪জন।