শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ



দক্ষিণ সুরমায় কলেজছাত্রীকে অপহরণকালে জনতার হাতে আটক ৩, গণধোলাই
নিজস্ব প্রতিবেদক

নিজস্ব প্রতিবেদক



বিজ্ঞাপন

সিলেটের দক্ষিণ সুরমার তেলিবাজারে প্রেমিকাকে জোরপূর্বক অপহরণকালে প্রেমিকসহ ৩ জনকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে দিয়েছে জনতা। ১৬ আগস্ট বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ১টায় তেলিবাজার পয়েন্টে এ ঘটনা ঘটে। পরে তাদেরকে পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

আটক ইমরান গোটাটিকর এলাকার নজরুল ইসলামের ছেলে। বাকিদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, কথিত প্রেমিক ইমরান আহমদ (২৬) চন্ডিপুল সিএনজি স্ট্যান্ডের চালক। নুরজাহান ডিগ্রি কলেজেরে এক ছাত্রীর সাথে তার দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। কয়েকদিন থেকে ছাত্রীটি তাকে এড়িয়ে চলায় সে বন্ধুদের দিয়ে তার গতিবিধি লক্ষ করে আসছিল। বৃহস্পতিবার দুপুরে ছাত্রীটি কলেজ থেকে নানার বাড়ি বলদী যাবার পথে সিএনজি নিয়ে তেলিবাজারে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা প্রেমিক ইমরান তাকে বহনকারী সিএনজি চালিত অটোরিকশাটি আটকে জোরপূর্বক ছাত্রীটিকে তুলে নিয়ে যায়। ঘটনা প্রত্যক্ষকারীরা এক পর্যায় গাড়িটি ধাওয়া করে সিলেট-সুনামগঞ্জ রোডের লতিপুর নামকস্থান থেকে অপহরণকারীদে আটক করে গণধোলাই দেয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে দক্ষিণ সুরমা থানার অফিসার ইনচার্জ খায়রুল ফজল বলেন, এক কলেজ ছাত্রীকে অপহরণ করে পালিয়ে যাওয়ার সময় জনতা আটক করে পুলিশে দেয়। আটককৃতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।