শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ



                    চাইলে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন

প্রতারণার ফাঁদে শোরুম থেকে শতাধিক গাড়ি খোয়া, চক্রের দুই সদস্য হবিগঞ্জে গ্রেফতার



বিজ্ঞাপন

নিউজ ডেস্ক: কিস্তিতে গাড়ি কেনার পর কিস্তি পরিশোধ না করেই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে প্রতারক চক্র। ইঞ্জিন, চেসিস ও রেজিস্ট্রেশন নম্বর ঘষামাজার পর গাড়িগুলোর যন্ত্রাংশ বেচে দেয় দেশজুড়ে।

অবিনব এ পন্থায় বিখ্যাত গাড়ি বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান নিটল মোটরস লিমিটেডের শতাধিক পিকআপ ভ্যান হাতিয়ে নিয়েছে চক্রটি।

১০/১২ জনের এ চক্রের দুই সদস্যকে হবিগঞ্জের বাহুবল থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নিটল মোটরস লিমিটেডের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তাদের কাছ থেকে চারটি পিকআপ ভ্যান জব্দ করা হয়েছে।

গ্রেফতাররা হলেন- বাহুবল উপজেলার ডুবাঐ গ্রামের সিরাজ মিয়ার ছেলে লিটন মিয়া (২৫) ও একই এলাকার শহীদ মিয়ার ছেলে রুবেল মিয়া (২৬)।

সম্প্রতি রাজধানীর মহাখালীতে অবস্থিত নিটল মোটরস লিমিটেডের লিগ্যাল কো-অর্ডিনেটর বাদী হয়ে বাহুবল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এতে আটজনের নাম উল্লেখ ও বেশ কয়েকজনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়। আসামিরা হবিগঞ্জ ও টাঙ্গাইল জেলার বাসিন্দা।

মামলায় অভিযোগের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, চক্রটির সদস্যরা নানা ঠিকানায় নিজেদের নামে নকল জাতীয় পরিচয়পত্রসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র তৈরি করেন। এগুলোর ব্যবহার করে দেশের বিভিন্ন জায়গায় অবস্থিত নিটল মোটরসের শোরুম থেকে কিস্তিতে গাড়ি কেনেন তারা। কিন্তু কিস্তি পরিশোধ না করেই মোবাইল নম্বর বন্ধসহ সব যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয় চক্রটি। পরে ইঞ্জিন, চেসিস ও রেজিস্ট্রেশন নম্বর ঘষামাজা ও রঙ পরিবর্তন করে গাড়িগুলোর যন্ত্রাংশ নানা স্থানে বিক্রি করে দেন তারা। এভাবে বিভিন্ন সময় চক্রটি শতাধিক গাড়ি হাতিয়ে নিয়েছে।

এ ঘটনায় গত শনিবার দিনগত রাতে বাহুবল উপজেলা থেকে লিটন ও রুবেলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পরদিন তাদের হবিগঞ্জ আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) বাহুবল মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাকিবুল হাসান জানান, দু’জনকে গ্রেফতারের পর তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী চারটি গাড়ি জব্দ করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতার ও হাতিয়ে নেওয়া গাড়ির যন্ত্রাংশগুলো উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।