রবিবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ



ভুল চিকিৎসায় শিশুর মৃত্যু, রাগীব-রাবেয়া হাসপাতালে ভাংচুর-সংঘর্ষ



বিজ্ঞাপন

লাতু ডেস্ক:: সিলেটের জালালাবাদ রাগীব রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক মৃত শিশুর ক্ষুব্ধ স্বজন ও হাসপাতালের নিরাপত্তাকর্মীদের মাঝে ধাওয়া-পাল্টা ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। ভুল চিকিৎসায় এক শিশুর মৃত্যুর অভিযোগের জের ধরে বুধবার (২ নভেম্বর) রাত ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

সংঘর্ষে দুপক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। পরে কয়েকজন নিরাপত্তকর্মীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার বিকেলে রাগীব রাবেয়া হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় নাফিসা বেগম নামে দশ বছরের এক শিশু। সিলেট সদর উপজেলার জালালাবাদ থানার মীরেরগাঁওয়ের এই শিশুকে বুধবার সকালে ওই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

নাফিসার মামা আবুল খায়ের জানান, সপ্তাহ খানেক আগে নাফিসার পায়ে লোহা ঢুকে গিয়েছিলো। সম্প্রতি তাতে পুঁজ বেঁধে যায। এর চিকিৎসার জন্য সকালে হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসকরা তাকে ভর্তি করে দেন। এরপর দুপুরে নাফিসার পায়ে চেনতানাশক ইনজেকশন দিয়ে ঘা থেকে পুঁজ বের করা হয়। এর কিছুক্ষণ পরই নাফিসার কথা বন্ধ হয়ে যায়। আর বিকেল ৪ টার দিকে সে মারা যায়।

ভুল চিকিৎসায় নাফিসার মৃত্যু হয়েছে এমন অভিযোগ করে খায়ের বলেন, আমাদের সন্দেহ ডাক্তাররা নাফিসার পায়ে ভুল ইনজেকশন পুশ করেছে। এজন্য সুস্থ একটা মেয়ে হঠাৎ করেই মারা গেছে। অথচ সে মুমূর্ষু ছিলো না। সম্পূর্ণ সুস্থ অবস্থায় কথা বলছিলো।

তিনি আরও বলেন- নাফিসার এমন মৃত্যুতে ক্ষুব্ধ হয়ে আমরা সন্ধ্যায় হাসপাতালে গিয়ে এ বিষয়ে জানতে চাইলে হাসপাতালের নিরাপত্তাকর্মীরা আমাদের উপর হামলা চালান। এতে আমাদের ১০ জন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে ৫ জন ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

তবে ভুল চিকিৎসার অভিযোগ অস্বীকার করে রাগীর রাবেয়া হাসপাতালের জরুরি বিভাগের দায়িত্বরত চিকিৎসক আওলাদ হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, ওই শিশুকে ঠিকঠাক চিকিৎসাই প্রদান করা হয়েছিলো। তবে দুপুরে খাবারের পর তার শারিরীক অবস্থার হঠাৎ অবনতি হয়। এরপর সে মারা যায়। খাবারে কোনো সমস্যা হয়েছিলো কি না তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে জালালবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজমুল হুদা খান রাগীব-রাবেয়া হাসপাতালের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। সংঘর্ষে কয়েকজন আহত হয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় সালিশি ব্যক্তিত্বরা বৈঠকে বসবেন।