বুধবার, ২৯ জুন ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৫ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ



ইংল্যান্ড দলে সিলেটের রবিন



বিজ্ঞাপন

লাতু ডেস্ক:: নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে ইংল্যান্ডের স্কোয়াডে নেই রবিন জেমস দাসের নাম। তবে ঘটনাচক্রে ২০ বছর বয়সী এই ক্রিকেটারকে নামতে হলো ফিল্ডিংয়ে। রবিনের জন্ম ইংল্যান্ডের লেটনস্টোনে হলেও তার শিকড় বাংলাদেশে। তার বাবা মৃদুল দাসের জন্ম হয়েছিল সিলেট বিভাগের সুনামগঞ্জ জেলায়।

আগের দিন বৃহস্পতিবার ক্রিকেটের তীর্থভূমি খ্যাত লর্ডসে শুরু হয়েছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড ও সফরকারী নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার লড়াই। ম্যাচের প্রথম দিনে কিউইদের ইনিংসের ৩৮তম ওভার চলাকালে মাঠে ঢোকেন রবিন। বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্য দুই দেশেরই নাগরিকত্ব রয়েছে তার। তবে ফিল্ডিং করতে নামা এই তরুণের জার্সিতে ছিল না কোনো নাম, ছিল না কোনো নম্বরও।

প্রথম টেস্টের জন্য কেবল ১৩ সদস্যের স্কোয়াড দিয়েছে ইংল্যান্ড। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে একাদশে সুযোগ না পাওয়া হ্যারি ব্রুক ও ক্রেগ ওভারটন দুই সতীর্থের বদলি হিসেবে ফিল্ডিং করছিলেন। অভিজ্ঞ তারকা স্টুয়ার্ট ব্রডও চলে যান মাঠের বাইরে। এরপর অভিষিক্ত পেসার ম্যাথু পটসও চোটে পড়লে অল্প কিছু সময়ের জন্য বাড়তি দুজন ফিল্ডারের দরকার পড়ে ইংলিশদের।

সমাধান হিসেবে রবিন ও নিখিল গোরান্টলাকে নামতে হয় মাঠে। তারা দুজনই এসেক্সের হয়ে খেলেন। ইংল্যান্ডের কাউন্টি দলটির দ্বিতীয় একাদশের হয়ে খেলেন রবিনের বড় ভাই জোনাথান জয় দাসও। রবিন ও নিখিল ফিল্ডিং করতে নামার পর এসেক্সের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে তাদেরকে শুভেচ্ছাও জানানো হয়।

পটসের অসমাপ্ত ওভার শেষ করেন ইংল্যান্ডের অধিনায়ক বেন স্টোকস। তার চারটি ডেলিভারির সময় ফিল্ডিং করেন রবিন। তারকা অলরাউন্ডার স্টোকসের ওই ওভার শেষ হলে মূল একাদশে থাকা ব্রড মাঠে ফেরেন। তখন রবিন বেরিয়ে যান।

এসেক্সের হয়ে এখন পর্যন্ত মাত্র একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন রবিন। ২০২০ সালের ওই ম্যাচে তিনি করেছিলেন ৭ রান। এর আগে ২০১৮ সালে এসেক্স অনূর্ধ্ব-১৬ দলের হয়ে ডাবল সেঞ্চুরি হাঁকানোর নজির আছে তার। সবশেষ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) প্লেয়ার্স ড্রাফটে নাম থাকলেও দল পাননি রবিন।

উল্লেখ্য, লর্ডসে প্রথম দিনে দুই দলের পেসারদের দাপটে পড়েছে মোট ১৭ উইকেট! নিউজিল্যান্ডকে ১৩২ রানে গুটিয়ে দিয়ে ইংল্যান্ড দিন শেষে করেছে ৭ উইকেটে ১১৬ রান তুলে। ৫৯ রানের উদ্বোধনী জুটির পর মাত্র ৮ রানের মধ্যে ৫ উইকেট খোয়ায় তারা। এখনও ইংলিশরা পিছিয়ে রয়েছে ১৬ রানে। এর আগে কিউইদের থামাতে ৪টি করে উইকেট নেন দলে ফেরা অভিজ্ঞ জেমস অ্যান্ডারসন ও পটস।