সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ



হবিগঞ্জ শহরের রাস্তার পাশেই ময়লার বড় স্তূপ



বিজ্ঞাপন

নিউজ ডেস্ক: দীর্ঘদিন ধরে হবিগঞ্জ জেলা আধুনিক স্টেডিয়ামের পাশ ঘেঁষে কামড়াপুর-নসরতপুর বাইপাস সড়কের দুই পাশে ফেলা হচ্ছে ময়লা-আবর্জনা। আবর্জনার স্তূপ ও দুর্গন্ধের কারণে এলাকাটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে উঠেছে। প্রতিনিয়ত ময়লা-আবর্জনা ফেলে পরিবেশ দূষণ করে আসছে হবিগঞ্জ পৌরসভা। নিজস্ব ডাম্পিং ব্যবস্থা না থাকার ফলে শহরের ময়লা-আবর্জনা ফেলা হয় সড়কের দুই পাশে। এতে দুর্গন্ধের শহরে পরিণত হয়েছে হবিগঞ্জ।

সরেজমিনে দেখা যায়, পূর্বদিকে হবিগঞ্জের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ বৃন্দাবন সরকারি কলেজ, হবিগঞ্জ জেলা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত, কিবরিয়া অডিটোরিয়াম ও আনসার ভিডিপি ক্যাম্প। পশ্চিমে জেলা আধুনিক স্টেডিয়াম। উত্তর ও দক্ষিণে জনবসতি। এর মাঝখানেই অবস্থিত কামড়াপুর-নসরতপুর বাইপাস সড়ক। পৌরসভার বিভিন্ন আবাসিক এলাকা, হোটেল-রেস্তোরাঁ, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, ক্লিনিকের বর্জ্য ফেলায় এ বাইপাস সড়কের পার্শ্ববর্তী খাল ভরাট হয়ে ময়লা-আবর্জনার ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে। শুধু স্টেডিয়াম সংলগ্ন বাইপাস সড়ক নয়, চৌধুরী বাজার খোয়াই ব্রিজ সংলগ্ন স্থান, পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সামনেও ময়লার ভাগাড় তৈরি করে রাখা হয়েছে। ফলে এখান দিয়ে যাতায়াতকারীদের চলাচলে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

অন্যদিকে, দুই দফা জমি কিনেও নানা জটিলতায় থমকে আছে হবিগঞ্জ পৌরসভার ডাম্পিং স্টেশন নির্মাণের কাজ। শুরুতে স্থানীয় বাসিন্দা আর জনপ্রতিনিধিদের আপত্তির কারণে এ কাজ থমকে দাঁড়ায়।

পৌরসভা সূত্র বলছে, পৌরসভার ময়লা ফেলার ডাম্পিং স্পট স্থাপনের জন্য কয়েক বছর পূর্বে বানিয়াচং আতুকুড়ায় হবিগঞ্জ-বানিয়াচং সড়কের পাশে দুই একর ২০ শতাংশ ভূমি ক্রয় করা হয়েছিল। কিন্তু স্থানীয় জনসাধারণের আপত্তির কারণে ডাম্পিং স্টেশন সেখানে স্থাপন করা সম্ভব হয়নি। এছাড়া পৌর পরিষদ রাস্তা থেকে ৫০০ ফিট ভেতরে আরও তিন একর জমি নিয়ে ডাম্পিং স্টেশনের নকশা করে বানিয়াচং ভূমি অফিসে পাঠানো হয়। এটি সেখান থেকে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে। সেখান থেকে অনুমোদন হলেই ডাম্পিং স্টেশন স্থাপন করা হবে।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল সোহেল জানান, বছরের পর বছর ধরে আধুনিক স্টেডিয়াম সংলগ্ন এলাকায় রাস্তার পাশে ময়লা ফেলা হচ্ছে। অথচ এটি একটি অত্যন্ত ব্যস্ত সড়ক। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ ও শত শত যানবাহন এ সড়ক দিয়ে চলাচল করে। পাশেই অসংখ্য গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এখানে ময়লা-আবর্জনা ফেলার কারণে এ সড়কে চলাচল অনেকটা দুষ্কর হয়ে পড়েছে।

এ বিষয়ে হবিগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ হোসেন কলি জানান, পৌরসভার ফেলা বর্জ্যে আধুনিক স্টেডিয়াম এলাকায় দুর্গন্ধময় পরিবেশ বিরাজ করছে। ফলে জাতীয় পর্যায়ের অনেক প্রতিযোগিতা স্টেডিয়ামে আয়োজন করা সম্ভব হয় না।

হবিগঞ্জ পৌর মেয়র আতাউর রহমান সেলিম জানান, পৌরসভার ময়লা-আবর্জনা ফেলা মানুষের দীর্ঘদিনের একটি সমস্যা। তাই এ সমস্যা সমাধানের জন্য ডাম্পিং স্টেশন নির্মাণ প্রকল্পটিকে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি এখন প্রক্রিয়াধীন। অতিদ্রুত এই সমস্যা সমাধান করা সম্ভব হবে।