শনিবার, ৮ মে ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ



বড়লেখায় ধান দ্রুত কাটার আহ্বান



বিজ্ঞাপন

নিজস্ব প্রতিবেদক :: মৌলভীবাজারের বড়লেখায় এবার বোরো ধানের ভালো ফলন হয়েছে। এতে কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। ইতিমধ্যে কৃষকরা ধান কাটা শুরু করেছেন। এদিকে হাওরে শিলাবৃষ্টি ও ভারী বর্ষণের আশঙ্কায় ধান কাটা দ্রুত শেষ করতে কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে কৃষকদের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

এদিকে বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) হাকালুকি হাওরের বোরোধান কাটা এবং নমুনা শস্য কর্তন পরিদর্শন করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শামীম আল ইমরান। তিনি কৃষকদেরকে আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্ভাবাস অনুযায়ী সম্ভাব্য শিলাবৃষ্টি ও আগাম বন্যা সম্পর্কে অবহিত করে পাকাধান দ্রুত কাটার আহ্বান জানিয়েছেন। এসময় উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা দেবল সরকার, সুজানগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নছিব আলী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।


উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, বড়লেখা উপজেলায় এবার ৪ হাজার ৯৩০ হেক্টর জমিতে বোরোর আবাদ করা হয়েছে। ধানের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২৫ হাজার মেট্টিক টন। সিংহভাগ বোরোর আবাদ হয়েছে উপজেলার হাকালুকি হাওরপারের তালিমপুর, বর্ণি ও সুজানগর ইউনিয়ন এলাকায়। অনুকূল আবহাওয়ার কারণে এবার বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে।

কৃষকরা জানান, গত ৫ বছরের মধ্যে এবার তাদের বোরোর ফলন চেয়ে ভাল হয়েছে। তারা ২৯ ব্রি ধান কাটা শুরু করেছেন। প্রথম দিকে খরায় কিছুটা ক্ষতি করলেও শেষ দিকের বৃষ্টিতে ধানের বেশ উপকার হয়েছে। দেশের অন্যান্য স্থানে সাম্প্রতিক গরম হাওয়ায় ধান নষ্ট হওয়ার খবর পাওয়া গেলেও হাকালুকি হাওরপাড়ের বোরো ধান নষ্ট হয়নি। চিটার পরিমাণও কম।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ দেবল সরকার বলেন, অনুকূল আবহাওয়ার কারণে বড়লেখায় এবার বোরো ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। এপ্রিলের শেষের দিকে শিলাবৃষ্টিসহ ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। ইতিমধ্যে কৃষকরা বিভিন্ন জায়গায় ধান কাটা শুরু করেছেন। আমরা বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে কৃষকদের ধান কাটার পরামর্শ দিচ্ছি। তাদের উৎসাহ দিচ্ছি। বোরোধান ৮০ শতাংশ পাকা হলেই তা কাটা যায় বলে জানান তিনি।