বুধবার, ২৩ জুন ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ৯ আষাঢ় ১৪২৮ বঙ্গাব্দ



কলকাতার ‘বাংলাদেশি পাড়া’ জনশূন্য
নিউজ ডেস্ক

নিউজ ডেস্ক



বিজ্ঞাপন

করোনা ভাইরাস আতঙ্কে কলকাতার ‘বাংলাদেশী পাড়া’ প্রায় জনশূন্য হয়ে পড়েছে। কলকাতার নিউমার্কেট সংলগ্ন মারকুইজ স্ট্রিট, ফ্রি-স্কুল স্ট্রিট, সদর স্ট্রিট, স্টুয়ার্ট লেন, টোটি লেন, হার্টফোর্ট লেনগুলি প্রায় জনশূন্য। এই এলাকার হোটেল ও গেস্ট হাউসগুলিতে সব সময় বাংলাদেশিসহ অন্যান্য দেশের পর্যটকের আনাগোনা থাকতো।


বাংলাদেশি পাড়া বলে পরিচিত নিউমার্কেটের এই এলাকায় আগে যেখানে একজন একজন অন্তর বাংলাদেশিদের দেখা পাওয়া যেতো শনিবার সেখানে গিয়ে একজনও বাংলাদেশির দেখা পাওয়া যায়নি। যে কয়েকজন ছিলেন তারা শনিবার সকালেই হোটেল ছেড়ে স্বদেশের পথে রওনা দিয়েছেন। অনেকেই চিকিৎসার জন্য এলেও তা অসম্পূর্ণ রেখেই ফিরে গেছেন বলে বিভিন্ন গেস্ট হাউস সুত্রে জানা গেছে।

এদিকে বিদেশিদের ভারতে আসার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি হওয়ায় হোটেল ও রেঁস্তোরা মালিকদের মাথায় হাত পড়েছে। আগামী ৪৫ দিন পর্যন্ত সব বুকিং বাতিল হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন সদর স্ট্রিটের একটি হোটেলের ম্যানেজার।

পর্যটক সংশ্লিষ্ট সব ব্যবসায়ীদের মুখ এখন ভার। নিউ মার্কেট, এয়ারকন্ডিশন মার্কেটসহ মধ্য কলকাতার বিভিন্ন বিপনীগুলি চলতো বাংলাদেশিদের কেনাকাটার উপর। এবার বাংলাদেশি শূন্য কলকাতায় কেনাকাটা বন্ধে চোখের পানি ফেলছেন তারা। গত শুক্রবার থেকেই বাংলাদেশগামী সরকারী পরিবহন পরিষেবা সৌহার্দ্যরে যাতায়াত বন্ধ হয়ে গেছে। বেসরকারি বিভিন্ন পরিবহন সংস্থার যে অসংখ্য ভলবো বাস প্রতিদিন পেট্রাপোল সীমান্ত পর্যন্ত যাতায়াত করতো সেগুলি আজ থেকে প্রায় সম্পূর্ণভাবেই বন্ধ হয়ে গেছে। আজ ঢাকা থেকে শুধুমাত্র ভারতীয় যাত্রী নিয়ে মৈত্রীর ভারতীয় ট্রেনটি ফিরে আসার পর ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত আর মৈত্রী এবং বন্ধন ট্রেন যাতায়াত করবে না।


এদিকে কলকাতার বাইপাসের ধারের স্পেশালিটি হাসপাতালগুলির পরিচালকদেরও মাথায় হাত। এই সব হাসপাতালে প্রধানত বাংলাদেশিরাই চিকিৎসা নিতে আসেন।