শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ



ক্রিকেটার শাহাদাত এবার সিএনজি চালককে মারলেন!
খবর: বার্তা২৪

খবর: বার্তা২৪



বিজ্ঞাপন

এবার দিনে দুপুরে এক সিএনজি চালককে হেনস্তা করলেন ক্রিকেটার শাহাদাত হোসেন। ৯ সেপ্টেস্বর রোববার বিকালে রাজধানীর আসাদগেটের কাছে শাহাদাতের ব্যক্তিগত গাঢ় নীল রঙের গাড়ির সঙ্গে একটি সিএনজি চালিত অটোরিকশা ধাক্কা লাগে। শাহাদাত এই সময় নিজের গাড়িটি চালাচ্ছিলেন। ঘটনার পরপরই শাহাদাত গাড়ি থেকে নেমে সঙ্গে সঙ্গে ‘অ্যাকশনে’ যান। মোহাম্মদ লিটন নামের সেই সিএনজি চালকের কলার টেনে তার সঙ্গে ধাক্কাধাক্কি শুরু করেন। সিএনজি চালক লিটন অভিযোগ করেছেন- কোন কথা না শুনে শাহাদাত তাকে চড় থাপ্পড় মারেন।

এই ঘটনার সময় এ প্রতিবেদক ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন। তিনি পুরো ঘটনার ছবি তার মোবাইল ফোনের ক্যামেরায় ধারণ করেন। সিএনজি চালকের ওপর রাগ ঝাড়ার পর শাহাদাত আরও ক্ষিপ্ত মেজাজ নিয়ে জানতে চান-ছবি তুলছেন কেন? মিডিয়ার উপস্থিতি টের পেয়ে শাহাদাত কিছুটা নরম সুর দেখান। তবে নিজের খ্যাপা মেজাজকে পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে শাহাদাত সিএনজি চালককে উদ্দেশ্য করে বলতে থাকেন-‘আমি তোকে মেরেছি। এবার পারলে তুই আমাকে মার। কিন্তু আমাকে ক্ষতিপূরণ দে।’

আশপাশে লোক জড়ো হতে শুরু করলে শাহাদাত তার গাড়িতে উঠে দ্রুতগতিতে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। ঘটনার পর থেকে শাহাদাতের সঙ্গে তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।

সিএনজি চালক লিটন পরে অভিযোগ করেন-‘গাড়ি নিয়ে আসাদ গেটের কাছ থেকে সংসদ ভবনের কাছে চলে আসার পর কয়েকজন ছেলে এসে আমাকে ঘিরে ধরে। তারা আশপাশের ক্লাব থেকে এসেছে বলে জানায়। তারা বলে আমি ক্রিকেটার শাহাদাতের গাড়িকে ধাক্কা মেরেছি। আমার ধারণা শাহাদাত আমাকে আরেক দফা হেনস্তা করতেই এই ছেলেগুলোকে পাঠিয়েছিল। বিপদ বুঝতে পেরে আমি কাছাকাছি থাকা পুলিশকে ঘটনা জানিয়ে কোনমতে সেখান থেকে বেরিয়ে যেতে পেরেছি। লোকজনের সামনে শাহাদাত আমাকে যেভাবে মেরেছে, তাতে আমি ভীষণ অপমানিত বোধ করছি। আমার গায়ে জামা কাপড়ের বোতাম ছিঁড়ে ফেলেছে। আমার মাথায়ও বেশ কয়েকটা আঘাত করেছে। গালে খামছি দিয়েছে।’

ক্রিকেটার শাহাদাত জাতীয় দল থেকে অনেকদিন ধরে বাদ পড়েছেন। মাঠের বাইরে বিভিন্ন ঘটনার জন্য মাঝেমাঝে তিনি অবশ্য শিরোনাম হয়েছিলেন। এর আগে নিজ বাসার গৃহকর্মীকে খুন্তি দিয়ে খুঁচিয়ে ও বেত দিয়ে পেটানোর অভিযোগ উঠেছিল তার বিরুদ্ধে। সেই মামলায় কয়েকমাস জেলেও কাটাতে হয় তাকে।