শুক্রবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ



গোলাপগঞ্জে গৃহবধূকে শ্বশুরের ধর্ষণের চেষ্টা: স্বর্ণালংকার লুট, স্বামী, শ্বাশুড়িসহ গ্রেফতার ৩




নিজস্ব প্রতিবেদক, গোলাপগঞ্জ :: সিলেটের গোলাপগঞ্জে শামিল আহমদ (৫০) নামের এক শ্বশুরের বিরুদ্ধে গৃহবধুকে ধর্ষণের চেষ্টা ও স্বর্নালংকার লুটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে গৃহবধুর শ্বাশুড়ি, স্বামীসহ ৩ জনকে গ্রেফতার এবং গৃহবধুকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে মূল অভিযুক্ত শামিল হোসেন পালিয়ে গেছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে।

বুধবার রাতে উপজেলার ফুলবাড়ি ইউনিয়নের হাজীপুর লরিফর গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।


গ্রেফতারকৃতরা হলেন- হাজীপুর লরিফর গ্রামের শামিল আহমদের স্ত্রী রানু বেগম (৪৫), পুত্র মেহেদী হাসান সাব্বির (২২) ও একই গ্রামের খবির মিয়ার পুত্র অনু মিয়া (২৫)।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী বাদী হয়ে গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা (মামলা নং-২১, তারিখ-১৯/১১/২০২০ খ্রিঃ) দায়ের করেছেন।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বুধবার রাতে ফুলবাড়ি ইউনিয়নের হাজীপুর লরিফর গ্রামে শ্বশুর কর্তৃক গৃহবধুকে ধর্ষণের চেষ্টা করে ও মারধর করে স্বর্নালংকার চেষ্টা করে। আর এসব কাজে সহযোগিতা করে ওই গৃহবধুর শ্বাশুড়ি ও স্বামী। তাৎক্ষণিক রাত আড়াইটার দিকে পুলিশ খবর পেলে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ হারুনুর রশীদ চৌধুরীর নির্দেশে এসআই আশীষ চন্দ্র তালুকদারের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এবং ভিকটিমকে উদ্ধার করে।

এ সময় গৃহবধুর স্বামী, শ্বাশুড়ি সহ ৩জনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসেন। তবে পুলিশ আসার খবর পেয়ে প্রধান অভিযুক্ত শ্বশুর শামিল আহমদ পালিয়ে যায়। এ সময় চুরি হওয়া ১টি স্বর্ণের গলার চেইন, ১টি স্বর্ণের হার, ৩ জোড়া স্বর্ণের কানের দুল, ২টি স্বর্ণের নাকফুল ও ১ জোড়া রুপার নূপুর উদ্ধার করা হয়।

গোলাপগঞ্জ মডেল থানার অফিসার মোহাম্মদ হারুনূর রশীদ চৌধুরী ৩ জন গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গ্রেফতারকৃত আসামিদের বৃহস্পতিবার সকালে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত শামিল হোসেনকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।