বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ



শিকারি যখন নিজেই শিকার!

নিউজ ডেস্ক




হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে পাখি শিকারের জন্য ফাঁদের ভেতরে লুকিয়ে থাকা আব্দুল হামিদ নামে এক শিকারিকে বের করে এনে জরিমানা করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)। এ সময় তিনি শিকার হওয়া ১৫টি পাখি অবমুক্ত করেন।

গত রোববার (১১ অক্টোবর) বিকেলে হবিগঞ্জ-বানিয়াচং সড়কের পার্শ্ববর্তী ডালি মহল্লা এলাকার হাওরে এ ঘটনা ঘটে। আব্দুল হামিদ উপজেলার পাড়াগাঁও গ্রামের বাসিন্দা।


প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, পাখি শিকারের জন্য হাওরে কলাগাছের পাতা, বেত এবং বাঁশ দিয়ে তৈরি করা একটি ঘরের ভেতরে ছিলেন আব্দুল হামিদ। ঘরটির পাশেই বাঁধা ছিল একটি বক পাখি। তখন উড়ে যাওয়া অন্য পাখি বসে থাকা বকটিকে দেখে ঘরে বসলে শিকারি টান দিয়ে মুক্ত পাখিটিকে ঘরের ভেতরে ঢুকিয়ে নেন। আব্দুল হামিদ এভাবে প্রায় প্রতিদিনই পাখি শিকার করতেন।

রোববার বিকেলে রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাসুদ রানা বিষয়টি দেখতে পান। সঙ্গে সঙ্গে তিনি ঘরের ভেতর থেকে শিকারি আব্দুল হামিদকে বের করে এনে এক হাজার টাকা অর্থদণ্ড করেন। এ সময় শিকার হওয়া ১৫টি পাখিকে খোলা আকাশে ছেড়ে দেন তিনি।

ইউএনও মাসুদ রানা বলেন, শীত আসার সঙ্গে সঙ্গে বিদেশী অতিথি পাখিরা বানিয়াচংয়ে দল বেধে আসে। তখন শিকারিরা সুযোগ নেন।