সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ



হবিগঞ্জে পৌর মেয়র ও উপজেলা চেয়ারম্যান মুখোমুখি, উত্তেজনা

নিউজ ডেস্ক




হবিগঞ্জে পৌর সভার মেয়র ও উপজেলা চেয়ারম্যানের সমর্থকরা মুখোমুখি অবস্থানে। উভয়ের বিরুদ্ধে চলছে চাঁদাবাজির পাল্টাপাল্টি অভিযোগ। সংবাদ সম্মেলনে ও বিক্ষোভ সমাবেশ করে বিষোদগার করছেন উভয়পক্ষের সমর্থকরা। এ নিয়ে দু’পক্ষের সমর্থকদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

গত ৭ই অক্টোবর সকালে হবিগঞ্জ শহরের মুক্তিযোদ্ধা চত্বর এলাকায় সড়ক অবরোধ করেন শ’ শ’ সিএনজি অটোরিকশা শ্রমিকরা। এতে কয়েকঘণ্টা শহরের প্রধান সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকে। তাদের অভিযোগ, পৌর মেয়র মিজানুর রহমান সিএনজি স্ট্যান্ডে চাঁদা দাবি করে আসছেন। এ চাঁদাবাজি বন্ধে তারা পুলিশ প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। পরে এ ঘটনাকে ঘিরে উভয়পক্ষের সমর্থকদের মাঝে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।


এদিকে এ ঘটনার প্রতিবাদে রোববার দুপুরে হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন পৌর মেয়র মিজানুর রহমান। তিনি বলেন, তার বিরুদ্ধে সিএনজি শ্রমিকদের শহরের সড়ক অবরোধের বিষয়টি ছিল একটি সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড। তাদের কর্মকাণ্ডে শহরবাসী আতঙ্কিত হয়েছেন। তারা আমার আগামী নির্বাচনে বিরূপ প্রভাব বিস্তার করতে এসব সাজানো অভিযোগ করেছে।

তিনি জানান, আমি সিএনজি সমিতির সভাপতিও না কোন পদেও নেই। এটা সিএনজি সমিতির দুটি গ্রুপের বিষয়। কে কার কাছ থেকে চাঁদা নিচ্ছেন তা জেলা সিএনজি সমিতির সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান মোতাচ্ছিরুল ইসলাম ভাল জানবেন। এছাড়া মেয়রের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও বানোয়াট অভিযোগের প্রতিবাদে রোববার সকাল ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত কর্মবিরতি পালন করেন হবিগঞ্জ পৌরসভার কর্মচারী-কর্মকর্তারা। এসময় পৌরসভার সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকে।

পরে সংক্ষিপ্ত সভায় বক্তৃতা করেন পৌরসভার মেয়র মিজানুর রহমান মিজান, কাউন্সিলর শেখ উমেদ আলী শামীম প্রমুখ। এদিকে মোতাচ্ছিরের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগ এনে মিজান সমর্থক সিএনজি শ্রমিকদের একাংশ। গতকাল দুপুরে তারা শহরে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। পরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে প্রতিবাদ সমাবেশ করে। অন্যদিকে মোতাচ্ছিরের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের বিরুদ্ধে সোমবার শহরে প্রতিবাদ সমাবেশ করবেন তার সমর্থকরা। এ নিয়ে শহরের উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান মোতাচ্ছিরুল ইসলাম জানান, সিএনজি শ্রমিকরা চাঁদাবাজির বন্ধের দাবিতে শহরে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। এটা তাদের ব্যাপার। তাদের কাছ থেকে যারা চাঁদা চেয়েছে তাদের বিরুদ্ধে তারা প্রতিবাদ করেছে। এতে আমার কোন ধরনের সম্পৃক্ততা ছিল না। তবে যারা আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছে তাদের দাঁতভাঙা জবাব দেবে সাধারণ জনগণ। আমি কোন জায়গা থেকে এসেছি, আমার পূর্বসূরিরা কেমন ছিলেন, শহরবাসী সবাই জানেন। তারাই এর সঠিক বিচার করবেন।