সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ



বড়লেখায় মসজিদ কমিটির সভাপতির পদ না ছাড়ায় হামলা, আহত ২

নিজস্ব প্রতিবেদক




মৌলভীবাজারের বড়লেখায় মসজিদ কমিটির সভাপতির পদ না ছাড়ায় উপজেলার সোনাতোলা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সভাপতির মতিউর রহমানের (৬২) ওপর হামলা চালোনা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসময় তাকে বাঁচাতে গিয়ে তার ছেলে সৌদি প্রবাসী ময়নুল ইসলাম ও ভাতিজা জাহেদ হোসেন গুরুতর আহত হয়েছেন। এরমধ্যে প্রবাসী ময়নুল ইসলামকে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার বেলা দুইটার দিকে এই ঘটনা ঘটে।


এই ঘটনায় শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকালে মতিউর রহমান বাদি হয়ে ১৩ জনের নামোল্লেখ ও আরও ২২ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে থানায় মামলা করেছেন। মামলার আসামিরা হলেন-উপজেলার সোনাতোলা গ্রামের জয়নাল আবেদীন, সাব্বির আহমদ, বাবুল হোসেন, আব্দুল আজিজ, আব্দুল আলিম, ইমন আহমদ, জামাল হোসেন, সায়েম আহমদ, আব্দুস সহিদ, কাইয়ুম আহমদ, আব্দুল হান্নান, ছামাদ আহমদ, আসাব উদ্দিন।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সোনাতালা গ্রামের বাসিন্দা মতিউর রহমান দীর্ঘ ২০ বছর ধরে সোনাতোলা কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি বড়লেখা সদর ইউপির সাবেক (ইউপি) সদস্য। ঘটনার দিন গতকাল শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) বেলা দুইটার দিকে জুমার নামাজ শেষে আসামিরা মসজিদ কমিটি নিয়ে কথা বলা শুরু করে। এসময় তারা মতিউর রহমানকে একযোগে মসজিদ কমিটির দায়িত্ব তাদের ১০ জনের নিকট বুঝিয়ে দিতে বলে। এসময় মসজিদের অন্যান্য মুরব্বি ও মতিউর রহমান বলেন বছর শেষ হলেই তিনি তাদের নিকট দায়িত্ব বুঝিয়ে দেবেন। এসময় আসামিরা মসজিদের হট্টগুল শুরু করে।


একপর্যায়ে তারা মতিউর রহমানকে মারধর করতে উদ্যত্ত হয়। এসময় মতিউর রহমানের ছেলে ময়নুল ইসলাম ও জাহেদ হোসেন তাকে বিবাদীদের কবল থেকে উদ্ধার করে নিয়ে মসজিদের বাইরে চলে আসেন। পরে আসামিরা দেশীয় বিভিন্ন অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আবারও মতিউর রহমানের ওপর হামলা চালায়। এসময় তিনি দৌঁড়ে মসজিদের ভেতরে ঢুকে পড়ে প্রাণ রক্ষা করেন। এসময় বিবাদীরা তাকে মারতে না পেরে তার ছেলে ময়নুল ইসলাম ও জাহেদ হোসেনকে ব্যাপক মারধর করে গুরুতর আহত করে। এসময় বিবাদীরা মসজিদেও ভাঙচুর করে। পরে স্থানীয়রা ময়নুল ইসলাম ও জাহেদ হোসেনকে উদ্ধার করে বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য ভর্তি করেন। অবস্থার কোনো উন্নতি না হওয়ায় প্রবাসী ময়নুল ইসলামকে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

বড়লেখা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. শরীফ উদ্দিন শনিবার বিকেলে মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, হামলায় দুইজন আহত হয়েছেন। এরমধ্যে ময়নুল ইসলামকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারে জন্য অভিযান চালানো হচ্ছে।