সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১১ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ



ফ্রান্সের প্যারিসে আবার সন্ত্রাসী হামলা

নিউজ ডেস্ক




আবারো ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। এবার সেই ব্যাঙ্গাত্মক ম্যাগাজিন শার্লি এবদো অফিসের কাছে অস্ত্রধারীরা হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করেছে দু’জনকে। একে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ইসলামপন্থি সন্ত্রাসী হামলা হিসেবে অভিহিত করেছে। এর আগে মহানবী হযরত মুহাম্মদকে (স.) নিয়ে ব্যাঙ্গচিত্র প্রকাশ করেছিল শার্লি এবদো। তার প্রতিশোধ নিতে ২০১৫ সালে এর অফিসে হামলা চালায় ইসলামপন্থিরা। তারা হত্যা করে কমপক্ষে ১২ জনকে। এ ঘটনায় জড়িত ১৪ জনের বিচার চলছে। এরই মধ্যে সেই শার্লি এবদো অফিসের কাছে ওই হামলা হলো।


ফরাসি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরাল্ড দারমেনিন বলেছেন, এই হামলা স্পষ্টতই ইসলামপন্থি সন্ত্রাস। ঘটনাস্থলের কাছ থেকে প্রধান সন্দেহভাজন হিসেবে ১৮ বছর বয়সী পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত এক তরুণকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তবে তার নাম প্রকাশ করা হয়নি। আরও ৬ জনকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি।

পুলিশ বলেছে, যে দু’জন আহত হয়েছেন তার মধ্যে একজন পুরুষ ও একজন নারী। আহত নারী একটি টেলিভিশন প্রোডাকশন কোম্পানিতে কাজ করেন। তাদের ওপর চাপাতি হামলার মতো হামলা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী জ্যাঁ ক্যাসটেক্স সাংবাদিকদের বলেছেন, এই হামলা হয়েছে বুলভার্ড রিচার্ড লেনোইরে। তবে আহতদের জীবন নিয়ে শঙ্কা নেই। ফ্রান্স-২’কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ডারমেনিন বলেছেন, এই হামলা আমাদের দেশের বিরুদ্ধে, সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে নতুন এক রক্তাক্ত হামলা। এটা এমন এক সড়কে ঘটেছে, যেখানে শার্লি এবদোর অফিস আছে। এভাবেই ইসলামপন্থি জঙ্গিরা তাদের কর্মকান্ড চালায়। এ জন্য তিনি দেশজুড়ে উপাসনালয়গুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করার নির্দেশ দিয়েছেন।

আহতদের সহকর্মীরা বলেছেন, তারা প্রিমিয়ার্স লিগনেস নিউজ প্রোডাকশন এজেন্সির বাইরে দাঁড়িয়ে ধুমপান করছিলেন। এ সময় ওই হামলা হয়। শার্লি এবদো অফিসে হামলায় নিহতদের একটি ভাস্কর্য্য ছিল কাছেই। একজন সহকর্মী বলেন, আমি জানালা দিয়ে বাইরে তাকালাম। দেখলাম আমাদের একজন সহকর্মী রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছেন। তার ওপর হামলা চালিয়েছে চাপাতি হাতে এক ব্যক্তি। প্রিমিয়ার্স লিগনেস-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সহপ্রধান পল মোরিয়েরা বলেছেন, হামলায় দু’জনই মারাত্মক আহত হয়েছেন। ঘটনার পর পরই পুলিশ এর চারপাশ সিল করে দেয়। আশপাশের মেট্রো স্টেশন বন্ধ করে দেয়া হয়। আশপাশের ৫টি স্কুল অবিলম্বে লকডাউন করে দেয়া হয়। তবে কয়েক ঘন্টা পরে তা আবার খুলে দেয়া হয়।