রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ



শাশুড়ি ও স্বামীর নির্যাতনে আহত মিমের মৃত্যু

নিউজ ডেস্ক




মৃত্যুর কাছে হার মানলেন গৃহবধূ তাসনিম আলম মিম। যৌতিুকের দাবিতে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের নির্যাতনের শিকার হয়ে ঢাকা মেডিকেলের আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ভোর ছয়টায় মারা যান তিনি।


জানা গেছে, কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার মো. মহিবুল আলমের একমাত্র মেয়ে তাসমিম মিম। ২০১৬ সালে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার তারাগুনিয়া গ্রামে মৃত জিন্না মোল্লার ছেলে এজাজ আহমেদ বাপ্পির সঙ্গে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর মিমের শাশুড়ি কহিনুর বেগম যৌতুকের টাকা নিয়ে তার সাথে খারাপ আচরণ শুরু করে। এর ধারাবাহিকতায় গত ১ সেপ্টেম্বর বিকেল চারটার দিকে তার স্বামী এবং শাশুড়ি মিলে মিমের ওপর নির্যাতন শুরু করে। এক পর্যায়ে মিমের অবস্থা খারাপ হয়ে যায়। তখন তাকে ঘরের ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে দিয়ে দরজা বন্ধ করে দেয়। মিমের চিৎকার শুনে পাশের লোকজন ছুটে দরজা ভেঙে মিমের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে। পরে তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্যে ঢাকায় পাঠায়। ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে মঙ্গলবার ভোর ৬টায় মৃত্যুবরণ করেন।

ঢাকা মেডিকেলের আইসিইউতে কর্তব্যরত চিকিৎসক সুব্রত জানান, ধারণা করা হচ্ছে তার মাথায় আঘাত করা হয়েছিল। এছাড়াও তার শরীরে অনেক জায়গাতে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

নিহত মিমের মামা খোশবুল আলম মুন্না জানান, এ বিষয়ে থানায় মামলা করার প্রস্তুতি চলছে।