বুধবার, ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৭ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

নতুন অফিস: আলতাব আলী পার্ক ও কমিউনিটি ভাবনা




তাইসির মাহমুদ :: ‘ব্রিক’ মানে ইট। ‘লেন’ মানে গলি। তাহলে ‘ব্রিক লেন’ অর্থ দাঁড়ায় ‘ইটের গলি’। আজ থেকে ৪শ’ বছর আগে লন্ডনের বাড়িগুলো ছিলো কাঠের তৈরি। ওই সময় একবার ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে কাঠের সব বাড়িঘর জ্বলেপুড়ে ছাই হয়ে যায়। এরপর থেকে ইট দিয়ে ঘর বানানো শুরু হয়। আজকের ব্রিক লেন দিয়েই দিনরাত বড় বড় ট্রাকে ইট আনা-নেওয়া হতো। তাই পরবর্তীতে এটির নামকরণ হয়ে যায় ‘ব্রিক লেন’। আর তুলনামুলক সস্তা জায়গা হওয়ায় শতাধিক বছর আগে এই ব্রিকলেনে এসে নিজেদের আস্তানা গেড়েছিলেন আমাদের পূর্বপুরুষরা ।


যুক্তরাজ্যের রাজধানী লন্ডন। আর এখানকার বাংলাদেশী কমিউনিটির রাজধানী হলো ‘ব্রিক লেন’। কিন্তু ‘ব্রিক লেন’ এখন আর অগের অবস্থানে নেই। এক সময় ব্রিক লেনের দুধারে অর্ধশতাধিক ইন্ডিয়ান রেস্টুরেন্ট ছিলো। কিন্তু এখন আছে মাত্র হাতেগোনা ক’টি। রেস্টুরেন্ট ব্যবসা মুখ থুবড়ে পড়েছে । অন্যান্য বিভিন্ন বিদেশী ব্যবসা দখল করে নিচ্ছে বাঙালির প্রাণকেন্দ্র ব্রিক লেন। এখন ব্রিক লেনে হাঁটলে আগের মতো বাংলাদেশীদের দেখা মিলে না। ব্রিকলেন জামে মসজিদও অনেকটা মুসল্লি-শূন্যতায় ভুগছে। অতিমাত্রায় ভাড়া বৃদ্ধির কারণে বাংলাদেশী কমিউনিটির পরিচয়বহনকারী ‘বাংলা টাউন ক্যাশ এন্ড কারি’ ব্রিকলেন ছেড়ে স্থানান্তরিত হচ্ছে বার্কিংয়ে। তাই সবমিলিয়ে ব্রিকলেন আর আগের জায়গায় নেই। ব্রিকলেন তার রাজধানীত্ব ধরে রাখতে পারেনি।

এখন বরং নতুন রাজধানী বলা চলে ‘হোয়াইটচ্যাপেল’কে। মুল রাস্তায় আছে একাধিক হাইস্ট্রিট ব্যাংক। আছে বিভিন্ন ধরনের ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান, দুটো আন্ডার গ্রাউন্ড ট্রেন স্টেশন, ঐতিহাসিক আলতাব আলী পার্ক আর সর্বোপরি বৃটেনের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ইস্ট লন্ডন মসজিদ ও লন্ডন মুসলিম সেন্টার। হোয়াইটচ্যাপেল এখন বেশ জমজমাট। সারাদিনই বাঙালির আনাগোনা লেগে থাকে। বাংলাদেশী কমিউনিটির রাজধানী এখন হোয়াটচ্যাপেল বললে অত্যুক্তি হবেনা।

ব্যস্ততম এই হোয়াইট্যাপেল রোডের একটি ভবনের দু’তলায় আমাদের নতুন অফিস। অফিসের ঠিক বিপরীতে ঐতিহাসিক আলতাব আলী পার্ক। সারাদিন কত বিচিত্র মানুষের আনাগোনা ঘটে এই পার্কে। দু’তলার কাচের জানালা দিয়ে আমরা পার্কের মনোরম দৃশ্য উপভোগ করি। পার্কের একপাশে আছে শহীদ মিনার। একুশে ফেব্রুয়ারির রাতে মানুষের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে আলতাব আলী পার্ক। আর মাত্র ৭ দিন বাকি। মহান একুশে ফেব্রুয়ারির রাতের প্রথম প্রহরে ফুল নিয়ে আসবে বিভিন্ন কমিউনিটি সংগঠন। আসবে আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ অন্যান্য রাজনৈতিকদলগুলো। স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত হবে হোয়াইটচ্যাপেল। চরম উত্তেজনা দেখা দিবে আওয়ামী-লীগ বিএনপির মধ্যে। শেষতক পুলিশ এসে উত্তেজনা প্রশমিত করবে।


এই পার্কে প্রতিদিন বাঙালি-অবাঙালী কতশত মানুষ আসে। তারা এখানে বসে, আড্ডা দেয়। তারা জানে এই পার্কের নাম আলতাব আলী পার্ক। কিন্ত কে সেই আলতাব আলী? কীভাবে শ্বেতাঙ্গ বর্ণবাদীদের হাতে প্রাণ দিয়েছিলেন তিনি? বাংলাদেশে কেমন আছে তাঁর পরিবারের লোকজন? কে জানে তা। কেউ কি খবর রাখে?

লেখক:
সম্পাদক, সাপ্তাহিক দেশ,
লন্ডন।

error: Content is protected !!