রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ৫ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ



Sex Cams

বড়লেখায় মুক্তিযোদ্ধার ভূমির সীমানা পিলার ও সাইনবোর্ড উপড়ে ফেলেছে চা বাগান কর্তৃপক্ষ

নিজস্ব প্রতিবেদক




মৌলভীবাজারের বড়লেখায় আকিজ গ্রুপের মালিকানাধীন বাহাদুরপুর চা-বাগান কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে প্রয়াত এক মুক্তিযোদ্ধার খরিদা ভূমির সীমানা পিলার ও তাঁর নামের সাইনবোর্ড উপড়ে ফেলার অভিযোগ ওঠেছে।


গত মঙ্গলবার দিবাগত রাত থেকে বুধবার ভোর রাতের যেকোনো সময় এই ঘটনাটি ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। অভিযোগ রয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে মুক্তিযোদ্ধার মালিকানাধীন এই জায়গাটি বাগান কর্তৃপক্ষ দখলের চেষ্টা করছে।

এদিকে আকিজ গ্রুপের মালিকানাধীন চা বাগান ব্যবস্থাপক কর্তৃক রণাঙ্গণের বীর সৈনিক বড়লেখার প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সফিকুর রহমানের নামের ব্যানার-সাইনবোর্ড ছিড়ে ও ভেঙে ফেলায় উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিল ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড কাউন্সিলের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। তারা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানিয়েছেন।

এলাকাবাসী ও ভূক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা গেছে, দাসেরবাজার ইউনিয়নের রসগ্রামের বাসিন্দা সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা সফিকুর রহমান ১৯৬৮ সালে বড়লেখা উপজেলার তেরাদরম মৌজার ২০৮ নং খতিয়ানের সাবেক ১১৭৮ নং দাগের (হাল দাগ ২২০২) টিলা শ্রেণীর ৫ একর ৮০ শতাংশ ভূমি নিলামে ক্রয় করেন। এ ভূমির পূর্বপার্শে (সংলগ্ন) বাহাদুরপুর চা বাগানের মালিকানাধীন ভূমি বিদ্যমান। ১৯৯৯ সালে সন্ত্রাসী হামলায় মুক্তিযোদ্ধা সফিকুর রহমান মারা যান। এরপর বিভিন্ন সময় প্রভাবশালী মহল তাঁর খরিদা ভূমি দখলের পাঁয়তারা চালালেও দখলে নিতে পারেনি। প্রায় ৬ বছর পূর্বে বাহাদারপুর চা বাগানের মালিকানা কিনে নেয় আকিজ গ্রুপ। এরপরই শুরু হয় প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধার ভুমি দখলের পাঁয়তারা। ওই মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা তাদের পৈত্রিক ভূমিতে কাজ করতে গেলে নতুন বাগান কর্তৃপক্ষ প্রায়ই বাঁধা দেয়। এরই মাঝে মঙ্গলবার দিবাগত রাত থেকে বুধবার ভোর রাতের যেকোনো সময় বাগান কর্তৃপক্ষ প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা সফিকুর রহমানের মালিকানাধীন ভূমির সীমানা পিলার, তারকাটা উপড়ে ফেলে। মুক্তিযোদ্ধার নামের ব্যানার ছিড়ে ফেলে, সাইনবোর্ড ও টিনসেট ঘর ভেঙে দেয়।


বুধবার সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে সংশ্লি¬ষ্ট ভূমির সীমানা পিলার ও তারকাটা উপড়ানো এবং ব্যানার-সাইনবোর্ড ছেড়া ও ভাঙা অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

মুক্তিযোদ্ধা সফিকুর রহমানের ছেলে নাদের আহমদ জানান, বুধবার সকালে বাগান বাড়িতে গেলে পিলার ও তারকাটা উপড়ানো ও বাবার নামের সাইনবোর্ড-ব্যানার ছিড়ে মাটিতে পড়ে থাকতে দেখেন। বিষয়টি স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের তিনি জানিয়েছেন। বাগানের লোকজন জানিয়েছে, ম্যানেজারের নির্দেশে তারা এগুলো অপসারণ করেছে। নাদের আরো জানান, এই ভূমিটি আমাদের বাবার খরিদা সূত্রে পাওয়া। আগের বাগান মালিকরা কেউ দাবি করেননি। চলতি সন পর্যন্ত খাজনাও পরিশোধ রয়েছে। কিন্তু আকিজ গ্রুপ বাগান ক্রয় করার পর আমাদের ভূমি দখলে নেওয়ার চেষ্টা করছে। কাজ করতে গেলে বাঁধা দিচ্ছে। আবার তাদের মালিকানার বিষয়ে কোনো প্রমাণপত্রও দেখায় না। জোর করে বাবার স্মৃতির চিহ্নটুকু দখলের পাঁয়তারা করছে।’

এ ব্যাপারে চা বাগানের ব্যবস্থাপক আব্দুল কাদের মুঠোফোনে বলেন, ‘এ ভূমি নিয়ে বিরোধ রয়েছে। তারা বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করায় এগুলো উপড়ে ফেলা হয়েছে। আগের মালিকের নিকট থেকে ওই ভূমি ক্রয়ের কোনো কাগজপত্র রয়েছে কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা কোম্পানির লিগ্যাল এডভাইজাররা ভালো জানেন।’