বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ




কুলাউড়ায় ঘটছে একের পর এক ট্রেন দুর্ঘটনা

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক




মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনায় ৪ জনের মৃত্যুর রেষ কাটতে না কাটতেই পরপর দু’দিন দুটি ট্রেন লাইনচ্যুত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

গতকাল শুক্রবার সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে আন্তঃনগর জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস ট্রেনটির কুলাউড়া রেলস্টেশনের প্রবেশমুখে একটি বগি লাইনচুত্য হয়। আর আজ শনিবার একই জায়গায় সকাল ৯টা ২৫ মিনিটে কালনি ট্রেনের একটি বগি লাইনচ্যুত হয়।


এ সময় ট্রেনচালক ট্রেন না থামিয়ে অল্প গতিতে এগুতে চাইলে লাইনচ্যুত বগিটি লাইনে উঠে যায়। তবে সকাল ৯টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত কালনি ট্রেন কুলাউড়া রেলওয়ে স্টেশনে আটকা ছিল।

কুলাউড়া স্টেশন মাস্টার মো. মুহিব উদ্দিন জানান, লাইনচ্যুত বগিটি রেখে প্রায় ২ ঘণ্টা পর বেলা ১১টা ৫ মিনিটে আন্তঃনগর কালনি এক্সপ্রেস ট্রেন ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

তিনি আরও জানান, ঘটনাটি স্টেশনের ভেতর ঘটায় রেল যোগাযোগ বন্ধ থাকেনি, তবে বরমচাল স্টেশনে কিছু সময় জয়ন্তিকা অবস্থান করে, কারণ এই সময় আমরা লাইন পরীক্ষা-নিরীক্ষা করি।


উল্লেখ্য, গত ২৩ জুন কুলাউড়ার বরমচাল এলাকায় দুর্ঘটনা কবলিত হয় ঢাকাগামী আন্তঃনগর ট্রেন উপবন। ঘটনাস্থলেই নিহত হন ৪ জন। আহত হন দুই শতাধিক যাত্রী। এ ঘটনার ১৫ দিনের মাথায় ৭ জুলাই গরুর সঙ্গে ধাক্কা লেগে ঢাকাগামী আন্তঃনগর টেন জয়ন্তিকার ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়।

এরপর গত ১৭ জুলাই ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা আন্তঃনগর ট্রেন কালনি ব্রাহ্মণবাড়িয়া আসার পর ছিঁড়ে যায় ব্রেকের তার। প্রায় ১ ঘণ্টা সময় ক্ষেপণ শেষে বেশি করে তার লাগিয়ে তোড়াতালি দিয়ে সিলেটের উদ্দেশে ছেড়ে যায় ট্রেনটি। শুক্রবার দুপুর ১২টা ১০ মিনিটে কুলাউড়া আউটার সিগন্যালের কাছে জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস ট্রেনটির একটি বগি লাইনচুত্য হয়। আর আজ শনিবার সকাল ৯টা ২৫ মিনিটে কালনি ট্রেনের একটি বগি লাইনচ্যুত হয়।


error: Content is protected !!