সোমবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৪ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ


 




শিবির নেতা হিসেবে জেল খাটা সেই বিয়ানীবাজারের ব্যাংকার রাজ্জাক অবশেষে কারামুক্ত

খবর: মানবজমিন





অবশেষে জামিনে মুক্তি পেলেন সেই ব্যাংকার আব্দুর রাজ্জাক। শিবির নেতা আব্দুর রাজ্জাকের নামে দায়ের করা মামলায় প্রায় ৬ মাস কারাবন্দী ছিলেন তিনি। একে একে ৬৩টি মামলায় তাকে জড়ানো হয়। এ বিষয়ে গত ৬ মে দৈনিক মানবজমিন একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হয়।


শনিবার সন্ধ্যায় সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে জামিনে বের হয়ে প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে আব্দুর রাজ্জাক বলেন, আমি প্রথমে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি প্রতি। সেখানে প্রকাশিত প্রতিবেদনটির কারণে অনেকেই বুঝতে পেরেছেন, আমি এসব মামলার প্রকৃত আসামি নই। বিষয়টি আমলে নিয়ে বিজ্ঞ আদালত আমার জামিন মঞ্জুর করেছেন। আমি কখনোই জামায়াত শিবিরের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলাম না।

আরও পড়ুন: সিলেটের শিবির নেতা রাজ্জাক বিদেশে আর জেল খাটছেন বিয়ানীবাজারের ব্যাংকার রাজ্জাক 


কিন্তু আমাকে শিবির নেতা বলে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আমি এখনো জানি না কেন আমাকে ফাঁসানো হল। জামিনে বের হওয়ার পরেও আমি এখন আতঙ্কে আছি। কারণ জামিনতো আর স্থায়ী মুক্তি না। এতোগুলো মামলার হাজিরা দিতে গেলেতো আমার সারা বছর কোর্টেই থাকতে হবে। আমি সরকার এবং বিজ্ঞ আদালতের কাছে অুনরোধ করছি এর সুষ্ঠু তদন্ত করে আমাকে এই মামলাগুলো থেকে অব্যাহতি দেয়া হোক।

এদিকে রাজ্জাককে গ্রহণ করার জন্য তার স্বজনরা সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে গেলেও বের হওয়ার পর কাউকে তাঁর সঙ্গে কথা বলতে দেয়া হয়নি। পুলিশ তাকে তাঁর মায়ের সঙ্গে একটি সিএনজিতে করে বাড়ি পাঠিয়ে দেয় বলে জানিয়েছেন তার স্বজনরা।


গত বছরের ১২ই ডিসেম্বর দুপুর ১২টায় ইসলামী ব্যাংকের হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ শাখা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় আব্দুর রাজ্জাকে। তাকে গ্রেপ্তার করা হয় সিলেট মহানগর ছাত্র শিবির সভাপতি পরিচয়ে। গ্রেপ্তারের সময় বলা হয় তার নামে ৩৭টি মামলার গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে। যদিও ব্যাংকার আব্দুর রাজ্জাক কখনোই শিবিরের সভাপতি বা সাধারণ সম্পাদক ছিলেন না। শিবিরের মূল নেতা আব্দুর রাজ্জাক বর্তমানে মালয়েশিয়ায় রয়েছেন।


error: Content is protected !!