বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



গোলাপগঞ্জে ভাইস চেয়ারম্যান পদে আহাদের বিপরীতে এক ঘরনার ৩ প্রার্থী

নিজস্ব প্রতিবেদক, গোলাপগঞ্জ:






আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন (দ্বিতীয় ধাপ) আগামী ১৮ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচনে গোলাপগঞ্জে ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৪ প্রার্থী। এর মধ্যে ৩ জন প্রার্থী এক ঘরনার। প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন- যুবলীগ নেতা শাহিন আহমদ (উড়োজাহাজ প্রতীক), সিলেট মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম সম্পাদক মনসুর আহমদ (বই প্রতীক), পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দিপন। তাদের বিপরীতে মাঠে রয়েছেন গোলাপগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি, গোলাপগঞ্জ বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আহাদ (বৈদ্যুতিক বাল্ব প্রতীক)। এক ঘরনার তিন প্রার্থী হওয়ায় সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন আব্দুল আহাদ।

এ ব্যাপারে পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি কামরান আহমদ জানান, সাবেক ও বর্তমানসহ তিনজন প্রার্থী নির্বাচিনে থাকায় ছাত্রলীগের একাংশ নীরব ভূমিকায় রয়েছেন। এতে করে এই তিন প্রার্থী বিপরীত প্রার্থী সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছেন।

তিনজন প্রার্থী পরিচিত হওয়ায় কার পক্ষে কে কাজ করবে কাকে সর্মথন জানাবে এ জন্য নেতাকর্মীরা বিপাকে রয়েছেন।

এদিকে নির্বাচনের সময় যত ঘনিয়ে আসছে চেয়ারম্যান প্রার্থীদের সাথে সাথে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা তাদের প্রচারণার গতি বাড়াচ্ছেন। ছুটে চলেছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। প্রার্থীরা দিনরাত প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। সবারই লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য জয় নিশ্চিত করা।

কিন্তু উপজেলার সাধারণ ভোটাররা এখনও ভোটের বিষয়ে মুখ খোলছেন না। তাঁরা রয়েছেন সিদ্ধান্তহীনতায়। সচেতন ভোটারদের পাশাপাশি সাধারণ ভোটাররাও নিরব-নিশ্চুপ ভূমিকা পালন করছেন। সকল প্রার্থীকেই তারা দোয়া-আশির্বাদ করছেন। কাকে সমর্থন করছেন, কার অনুকূলে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন এ নিয়ে প্রকাশ্যে কিছু বলছেন না কেউ। সবারই এক কথা, সময় এলেই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। প্রার্থীদের কর্মীরা নিজের প্রার্থীর সবচেয়ে ভাল অবস্থান ব্যাখ্যা ও জয়ের দাবি করলেও সাধারণ ভোটারদের কি মতামত বুঝা যাচ্ছে না।

বিভিন্ন এলাকার কয়েকজন ভোটারের সাথে আলোচনা করে জানা যায়, উপজেলা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী সকল প্রার্থীই পরিচিত, ঘনিষ্ঠ ও চেনা-জানা। কাকে রেখে কাকে ভোটাররা সমর্থন করবেন এই দোলাচলে আছেন অনেকে। অনেকে এক প্রার্থীকে সমর্থন করলে অন্য প্রার্থী মনঃক্ষুণ্ণ হবেন এই কারণে নিজের সমর্থনের বিষয়ে মুখ বন্ধ রাখছেন। এছাড়াও সার্বিক উন্নয়নে যিনি বলিষ্ট ভূমিকা পালন করবেন তাকেই আগামীতে পদে দেখতে চাইবেন। তবে এসব বিষয়ে কাকে যোগ্য মনে করছেন ভোটাররা স্পষ্ট করে বলতে নারাজ।

এ উপজেলায় হেভিওয়েট প্রার্থীদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরী (নৌকা প্রতীক), স্বতন্ত্র প্রার্থী এডভোকেট মাওলানা রশিদ আহমদ (আনারস প্রতীক) পান, ইসলামী ঐক্যজোটের প্রার্থী জহির আহমদ (মিনার প্রতীক) এবং ভাইস চেয়ারম্যান পদে গোলাপগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি আব্দুল আহাদ (বৈদ্যুতিক বাল্ব প্রতীক), সিলেট মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম সম্পাদক মনসুর আহমদ (বই প্রতীক), পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দিপন (তালা প্রতীক) , যুবলীগ নেতা শাহিন আহমদ ( উড়োজাহাজ প্রতীক) এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সিলেট মহানগর যুব মহিলা লীগের সভাপতি, সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজিরা বেগম শীলা (ফুটবল প্রতীক), মাছুমা সিদ্দিকা (পদ্ম ফুল প্রতীক) ও নার্গিস পারভীন (কলস প্রতীক) ভোটের মাঠে রয়েছেন।







error: Content is protected !!