বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯ খ্রীষ্টাব্দ | ৬ চৈত্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ



জগন্নাথপুরে ২০ বছর আগের খুনের মামলায় ৪ জনের যাবজ্জীবন

নিউজ ডেস্ক






সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে ২০ বছর আগে খুন হওয়া তারিফ মিয়া হত্যা মামলায় ৪ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার সকালে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের এজলাস কক্ষে এ রায় প্রদান করেন অতিরিক্ত দায়রা জজ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন।

সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন, জগন্নাথপুর উপজেলার খাশিয়া গ্রামের মৃত আব্দুল মনাফের ছেলে নোয়াব আলী, কাচা মিয়া, ছাতক উপজেলার হায়দাপুর গ্রামের মৃত মান উল্লার ছেলে বাছা মিয়া ও ফটিক মিয়া। এদের মধ্যে দুইজন আসামি পলাতক রয়েছেন। তাদের প্রত্যেককে দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রদান ও নগদ ৫০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায় আরও ৩ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড এবং প্যানেল কোডের ৪৪৮ ধারায় ৬ মাসের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়।

রায়ের কপি থেকে জানা যায়, ১৯৯৯ সালের ১৬ নভেম্বর জগন্নাথপুর উপজেলার খাশিলা এলাকার পূর্ব শত্রুতার জেদ ধরে মধ্যরাতে তারিফ মিয়ার ঘরে প্রবেশ করে নোয়াব আলী, কাচা মিয়া, তোরন, হিরন, কাহার, বাছা মিয়া, ও ফটিক মিয়াসহ আরও ২ থেকে ৩ অজ্ঞাতনামা লোকজন।

এরপর তাকে রশি দিয়ে বেঁধে হামলা চালায়। এসময় তার স্ত্রীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা জড়ো হলে আসামিরা পালিয়ে যায়। পরে আহত অবস্থায় তারিফ মিয়াকে হাসপাতালে নেয়া হলে রাস্তায় তিনি মারা যান। এ ঘটনার পরদিন তারিফ মিয়ার স্ত্রী আমেনা বেগম জগন্নাথপুর থানায় মামলা করেন।

রায়কালে অতিরিক্ত দায়রা জজ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন পলাতক আসামি কাচা মিয়া ও ফটিক মিয়ার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পারোয়ানা জারি করে তাদের সাজা কার্যকর করা ও বাকি ২ আসামি নোয়াব আলী ও বাছা মিয়াকে সাজা পরোয়ানার মূলে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এ ব্যাপারে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী সোহেল আহমেদ ছইল মিয়া বলেন, দীর্ঘ ২০ বছর ধরে চলা তারিফ মিয়া হত্যা মামলার সুষ্ঠ রায় হয়েছে। এতে নিহহের পরিবার একটি ন্যায় বিচার পেয়েছে।







error: Content is protected !!